এবার আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে দাঁড়ালেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। মঙ্গলবার সকাল ১০টা নাগাদ তিনি দিল্লি-হরিয়ানা সীমানা এলাকায় অবস্থিত গুরু তেগ বাহাদুর মেমোরিয়াল কেন্দ্রে যান। এটি সিংহু বর্ডার সংলগ্ন এলাকায় অবস্থান। আর সেখানেই তিনি আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে কথা বলেন। পাশাপাশি কৃষকদের দেশের সেবাদার হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন তাঁর দলের বিধায়ক ও নেতা কর্মীরা কৃষকদের পাশে রয়েছে। তাঁরা কৃষকদের সেবায় কাজ করছে। আর  তিনি নিজেকে সেবাদার হিসেবে সম্বোন করে বলেন তিনি কোনও মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আসেননি। তিনি সেবাদার হিসেবই আন্দোলন মঞ্চে উপস্থিত হয়েছেন। আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে কথা বলার জন্যই এসেছেন। একই সঙ্গে তিনি এদিন আরও একবার স্পষ্ট করে জানিয়েদেন আগামিকাল কৃষকদের ডাকা বনধ তিনি ও  তাঁর দল সমর্থন করছে। 

অরবিন্দ কেজরিওয়াল, আন্দোলনরত কৃষকদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি তাঁদের  কী কী প্রয়োজন সে সম্পর্কেও খোঁজ খবর নেন। তিনি ঘুরে দেখেন সংলগ্ন এলাকা। যদিও কোনও কিছুর প্রয়োজন হয়  তাহলে তিনি তা ব্যবস্থা করে দেবেন বলেও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।কেজরিওয়াল জানিয়েছেন তাঁরা কৃষকদের পক্ষে রয়েছে। তাদের সমস্যা ও দাবিগুলি বৈধ বলেও আন্দোলনকারী কৃষকদের হয়ে সওয়াল করেন তিনি। পাশাপাশি বলেন প্রথম থেকেই দিল্লির সরকার কৃষকদের পক্ষে দাঁড়িয়ে ছিল। আর সেই কারণেই কেন্দ্রীয় সরকার দিল্লির ৯টি স্টেডিয়ামকে জেল তৈরি করার অনুমতি চাইলেও তা দেওয়া হয়নি। 


 গতকালই কেজরিওয়ালের দল আম আদমি পার্টি জানিয়ে দিয়েছিল তারা ৮ ডিসেম্বর কৃষকদের ডাকা ১২ ঘণ্টার ধর্মঘট সমর্থন করবে। তিনটি কৃষি বিল বাতিলের দাবিতে পঞ্জাব ও হরিয়ানার কৃষকরা আন্দোলন শুরু করেছিল। বর্তমানে ভারতের অধিকাংশ রাজ্যের কৃষকরাই তাদের পাশে দাঁড়িয়েছি। বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছে। আগামিকালের কৃষকদের ডাকা ভারত বনধে কিছুটা হলেও ফুটে উঠছে বিরোধী ঐক্য।