আত্মনির্ভরতার দিকে আরও একধাপ এগোতে চলেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। শীঘ্রই প্রথম দেশীয় যদ্ধবিমান তেজস থেকে পরীক্ষা করা হবে প্রথম দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি বিমান থেকে বায়ুতে নিক্ষেপযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র 'অস্ত্র'। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গিয়েছে, তেজজসে 'অস্ত্র'কে যুক্ত করার বিষয়ে জমিতে যেসব প্রাথমিক পরীক্ষার প্রয়োজন ছিল, তা এখন কার্যত সম্পূর্ণ। এবার আকাশে ওড়ার পালা। তারপর আর বর্তমানে যে ব্যয়বহুল রুশ, ফরাসী বা ইসরাইলি ক্ষেপণাস্ত্র কেনা হয়, সেগুলির দরকার পড়বে না। দেশীয় 'অস্ত্র'এই বলীয়ান হবে ভারতীয় বায়ুসেনা।

এটি একটি বায়ু থেকে বায়ু বিয়ন্ড ভিস্যুয়াল রেঞ্জ মিসাইল (বিবিভিআরএম) অর্থাৎ দৃষ্টি সীমানার বাইরে থাকা লক্ষ্যবস্তুকেও আঘাত করতে পারে। এর পাল্লা ১১০ কিলোমিটার। কোনও যুদ্ধবিমান থেকে নিক্ষেপ করলে ১০০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত যেতে পারবে। গতিবেগ, শব্দের গতিবেগের চার গুণেরও বেশি। সবচেয়ে বড় কথা হল, 'অস্ত্র'কে আরও উন্নত করার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে ডিআরডিও। আগামী বছরের শুরুর দিকেই অস্ত্র-এর দ্বিতীয় সংস্করণের (মার্ক-২) পরীক্ষা শুরুর পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই দ্বিতীয় সংস্করণটির পাল্লা ১৬০ কিলোমিটার। একইসঙ্গে চলছে তৃতীয় সংস্করণ বিকাশের পরিকল্পনা, যার পাল্লা হবে ৩৫০ কিলোমিটার।

আরও পড়ুন - 'গতি' দূরে সরলেও বঙ্গোপসাগরে ফের ঘনাচ্ছে ঘুর্ণিঝড়, কোথায় কখন আছড়ে পড়বে

আরো পড়ুন - বাংলা-সহ ৪ রাজ্য বাড়াচ্ছে চিকিৎসাধীন রোগীর ভার, কোথায় দাঁড়িয়ে ভারদতের করোনা পরিসংখ্যান

আরও পড়ুন - 'চাই সংহত, বিস্তৃত ও সামগ্রিক লড়াই' - জি২০ বৈঠকে প্যারিস চুক্তি নিয়ে বড় দাবি মোদীর

এর আগেই অবশ্য রুশ-জাত সুখোই-৩০ এমকেআই যুদ্ধবিমান থেকে অস্ত্র মার্ক-১'এর পরীক্ষা করা হয়েছে। যা সফল হওয়ার পরই চলতি বছরের জুলাই মাসে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিং-এর নেতৃত্বাধীন প্রতিরক্ষা অধিগ্রহণ পরিষদ ২৮৮ টি এই ক্ষেপণাস্ত্র-এর অর্ডারের জন্য প্রাথমিক অনুমোদন দিয়েছিল। ডিআরডিও সূত্রে জানা গিয়েছে, তেজসে যুদ্ধবিমানের ট্রায়াল শেষ হলেই, বড় মাপের অর্ডার আসবে। এর আগেই হিন্দুস্তান অ্যারোনটিকস লিমিটেড-কে ৮৩ টি তেজস মার্ক-১ এ যুদ্ধবিমানের অর্ডার দেওয়ার বিষয়ে অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ফলে খুব তাড়াতাড়ি দেশীয় যুদ্ধবিমান এবং দেশীয় ক্ষেপণাস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ভারতীয় বায়ুসেনা আত্মনির্ভর হয়ে উঠতে চলেছে ।