বুধবার বহু প্রতীক্ষিত অযোধ্যা রাম মন্দিরের  ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেই বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে রীতিমত সাজোসাজো মন্দির শহর জুড়ে। প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতির কারণে গোটা এলাকাই মুড়ে ফেলা হয়েছে নিরাপত্তার চাদরে। ভূমি পুজোর দুদিন আগেই অযোধ্যায় রাম মন্দির অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণপত্রের ছবি প্রকাশ করা হয়েছে। আমন্ত্রণ জানান হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। আর প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আরও চার জন মূল মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন বলেও জানান হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মঞ্চ ভাগ করে নেবেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের প্রধান মোহন ভাগবত, উত্তর প্রদেশের রাজ্যপাল আনন্দিবেন, মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। মঞ্চে উপস্থিত থাকবেন মহন্ত নিত্য গোপাল দাস। 

আমন্ত্রণ পত্রে রয়েছে রাম লালা বা শিশু অবস্থায় শ্রী রামচন্দ্রের ছবি। প্রতিটি আমন্ত্রণ পত্রে থাকছে সুরক্ষা কোর্ড। যা কেবলমাত্র একবারই ব্যবহার করা যাবে। রাম মন্দির ট্রাস্টের সদস্য চম্পত রায়ের মতে অতিথি যদি একবার অনুষ্ঠান স্থল থেকে বার হন তাহলে আর তাঁকে ঢউকতে দেওয়া হবে না। 

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে অতিথি তালিকায় রীতিমত কাটছাঁট করতে হয়েছে বলেও জানিয়েছেন এক সদস্য। ভূমি পুজোর জন্য মাত্র ১৭৫ জনকেই আমন্ত্রণ জানান হয়েছে।  অনুষ্ঠানেও নিরাপদ শারীরিক দূরত্বেকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। প্রথম আমন্ত্রণ পত্রটি পাঠান হয়েছে পদশ্রী প্রাকপ মোহম্মদ শারীফকে।

গজরাজ কি মন কাড়ল চিতাবাঘের, ২৬ সেকেন্ডের ভাইরাল ভিডিও নিয়ে কী বলেছে নেটদুনিয়া ...

ইদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়ার পথে উধাও সেনা জওয়ান, জঙ্গিদের হাত রয়েছে বলেই মনে করেছে প্রশাসন ...

এদিন গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। নিরাপত্তার পাশাপাশি মোদী জন্য তৈরি হওয়া অস্থায়ী হেলিপ্যাডের কাজও খতিয়ে দেখেন তিনি। এদিন যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছেন ভুমি পুজোর অনুষ্ঠানে আদবানি ও মুরলীমনোহর জোশী উপস্থিত থাকতে পারছেন না আক্ষেপ করেছেন। তিনি পুজো করে হনুমানগাড়ি মন্দিরে। বুধবার এই মন্দিরে পুজো করার পরই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী রাম মন্দিরের মূল অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন।  

রাম মন্দিরের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের আগে হনুমানের পুজো করবেন প্রধানমন্ত্রী, জেনেনিন তার ধর্মীয় কারণ ..