নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে প্রথম থেকেই সরব ছিলেন জাভেদ আখতার। তীব্র সমালোচনা করেছিলেন কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের। সেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে  উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল রাজধানী দিল্লি। আর সেই সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত প্রাণ হারিয়েছেন ৪০-এরও বেশি মানুষ। দিল্লির হিংসায় মৃতদের একজন আইবি কর্মী অঙ্কিত শর্মা। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করেই চূড়ান্ত সক্রিয় হতে দেখা গেছে দিল্লি পুলিশকে। তেমনই উক্তি করে টুইট করেছিলেন জাভেদ আখতার। সোস্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছিলেন, অনেকের মৃত্যু হয়েছে। অনেকেই আহত হয়েছেন, অনেকের  বাড়ি পুড়ে গেছে, অনেক দোকান লুঠ হয়েছে, অনেকেই সর্বশান্ত হয়েছে, কিন্তু দিল্লি পুলিশ একটি বাড়ি সিল করেছে এবং একজনকেই খুঁজে  বেড়াচ্ছে। ঘটনাচক্রে তাঁর নাম তাহির। দিল্লি পুলিশের এই দৃঢ়তা সত্যিই প্রশংসনীয়। 

আরও পড়ুনঃ অমিতাভ-রণবীর রসায়ন কেমন, ছবি শেয়ার করে খোলসা করলেন বিগ-বি

আরও পড়ুনঃ এনেছেন অতিরিক্ত মালপত্র, বারাণসী বিমানবন্দরে আটকানো হল রাষ্ট্রপতিকে

একপরই পাল্টা টুইট করেন বিজেপি সাংসদ বালুল সুপ্রিয়। আর সেখানেই সরাসরি নিশানা করেন জাভেদ আখতারকে। তিনি লেখেন, দিল্লিতে যখন আগুন জ্বলছে, তখন জাভেদ আখতার ধর্ম খুঁজে বেড়াচ্ছেন। জাভেদ আখতারের আসল মুখোশ খুলে গিয়েছে। একটা সময় যিনি ছিলেন মহান কবি, নাস্তিকতা নিস্তিকতাবাদ নিয়ে ভাষণ দিতেন। এখন তাঁর সেই মন ধর্মের কাছে বিক্রি হয়ে গিয়েছে। 

 

 

এরপরই টুইট করে পাল্টা বাবুল সুপ্রিয়কে নিশানা করেন জাভেদ আখতার। তিনি কটাক্ষ করে বলেন এমন সময় বাবুল সুপ্রিয় ও বিবেক অগ্নিহত্রীরা  এজাতীয় মন্তব্য করে তাঁকে হাসাতে বাধ্য করছে। তাই তিনি তাঁদের ধন্যবাদ জানান।  

আরও পড়ুনঃ শহীদ মিনারে অমিতের সভা, যানজটের আশঙ্কা শহরে

আপ কাউন্সিলর তাহির হুসেনকে নিয়ে যথেষ্ট জল ঘোলা হয়েছে। অঙ্কিত শর্মাকে খুনের অভিযোগ রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে তাহিরের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হয়েছে। বাড়ি সিল করে দিয়েছে দিল্লি পুলিশ। উত্তর পূর্ব দিল্লির বিস্তীর্ণ এলাকায় হিংসায় মদত দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। ইতিমধ্যে দিল্লির আম আদমি পার্টি তাহিরের প্রাথমিক সদস্যপদ কেড়ে নিয়েছে। এই অবস্থায় জাভেদ আখতার দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন। তারই পাল্টা টুইট করে বিরোধিতার পথে নেমেছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়।