মামলার অবতারণায় কেটে গিয়েছে অনেকগুলো দিন। সোমবার বিলকিস বানো মামলায় গুজরাত সরকারকে দুই সপ্তাহের মধ্যে ক্ষতিপুরণের টাকা ও চাকরির ব্যবস্থা করতে নির্দেশ দিল সুপ্রিম কোর্ট।

২০২ সালে গুদরাতে গোধরা কাণ্ডের পরই দাহোদ জেলার রণধিকাপুর গ্রামে গণ ধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন বিলকিস। চলতি বছরের এপ্রিল মাসে এই মামলায় বিলকিস-কে ৫০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ, সরকারি চাকরি ও থাকার জায়গার বন্দোবস্ত করে দেওয়ার রায় দিয়েছিল আদালত।

এদিন গুজরাত সরকারের পক্ষ থেকে সেই রায় পুনর্বিবেচনবা করার আবেদন করা হয় আদালতে। কিন্তু আদালত তাদের আবেদন তো শোনেইনি, উপরন্ত ২ সপ্তাহের মধ্যেই রায়ের নির্দেশ অনুযায়ী পদক্ষপ নিতে বলেছে। শুধু বিলকিসকে ক্ষতিপূরণ, চাকরি দেওয়ার নির্দেশই নয়, সেই সঙ্গে আইপিএস আরএস ভাগোরা-সহ বম্বে হাইকোর্টের নির্দেশে দোষী সাব্যস্ত হওয়া পুলিশ অফিসারদের বিরুদ্ধেও দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ২০১৭ সালে বম্বে হাইকোর্ট পাঁচ পুলিশ অফিসার ও দুই ডাক্তারের বিরুদ্ধে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে দোষী সাব্যস্ত করেছিল।

২০০২ সালে গুজরাত দাঙ্গার সময় বিলকিসের বয়স ছিল মাত্র ১৯। তাঁর পরিবারের চার মহিলা ও চার শিশু-সহ মোট ১৪ জনকে হত্যা করা হয়েছিল। বিলকিসকেও মৃত ভেবেই অত্যাচারের পর ফেলে রেখে যাওয়া হয়েছিল। কিন্তু তিনি প্রাণে বেঁচে যান ও তারপর সেই ঘটনার বিরুদ্ধে গত ১৭ বছর ধরে লড়াই করছেন আদালতের ভিতরে ও বাইরে।