ভারতের মোট ৭টি রাজ্যে বার্ড ফ্লু হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যগুলি হল উত্তর প্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, কেরল, রাজস্থান, হিমাচল প্রদেশ, হরিয়ানা, গুজরাত।  অ্যাভিয়ান ফ্লু বা বার্ড ফ্লু সংক্রমণ রুখতে রীতিমত তৎপর কেন্দ্রীয় সরকার। ইতিমধ্যেই পশুপালন ও গবাদিপশু অভিদফর সক্রিয় ভূমিকা গ্রহণ করছে। হাঁস, মুরগির অপ্রত্যাশিত মৃত্যুর ঘটনা ক্ষতিয়ে দেখছে। সম্ভাব্য হটস্পটগুলিতে নজরদারী বাড়িয়েছে। সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলিতে সতর্কতা জারি করা হয়েছে। জাতীয় রাজধানী দিল্লি থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। পরীক্ষার জন্য তা পাঠান হয়েছে জলন্ধরে। 

অন্যদিকে দিল্লিতে সরাসরি হাঁস, মুরগিজাতীয় পাখি আমদানি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আগামী ১০ দিনের জন্য গাজিপুরে শহরের বৃহত্তম পোলট্রি বাজার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বার্ড ফ্লু সংক্রান্ত তথ্য সরবরাহ করার জন্য ২৪ ঘণ্টার জন্য হেল্পলাইন নম্বর চালু করা হয়েছে। পশু চিকিৎসকরা পাখির বাজার, বন্য প্রাণী স্থাপনা ও জয়শয়গুলি খতিয়ে দেখছেন। গত তিন দিন ধরে দিল্লিতে প্রচুর পাখির মৃত্যু হয়েছে যা বার্ড ফ্লুর আতঙ্ক আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। 

'অন্ধকারে পথ হারিয়েছে চিনা সেনা', চাপে পড়ে লাদাখে অনুপ্রবেশ নিয়ে দাবি বেজিং-এর ...

বালাকোট হামলা নিয়ে ভারতের মন্তব্যে সায়, প্রাক্তন পাক কূটনীতিক চাপ বাড়াচ্ছেন ইমরান খানের ...

মধ্য প্রদেশের ১৩টি জেলায় বার্ড ফ্লু নিশ্চিত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। ২৭ জেলায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১১০০ কাকের মৃ্ত্যু হয়েছে। আগামী ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত পাখি আমদানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। বার্ড ফ্লু নমুনা পাওয়ায় বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে মালওয়া জেলার একটি পোলট্রি বাজার। অন্যদিকে ছত্তিশগড়েও এই রোগের প্রকোপ বাড়ছে বলে আশঙ্কা করা হয়েছে। কারণ শুক্রবার রাত থেকেই এই রাজ্যে বেশ কিছু পাখির মৃত্যু ভাবিয়ে তুলেছে স্থানীয় প্রশাসনকে। অন্যদিকে মগারাষ্ট্রের পালভালি জেলার একটি পোলট্রি ফার্মে ৯০০ মুরগি মরে গেছে। ওই ফার্ম ও আসপাসের এলাকা থেকে নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। 


কেরলে এখনও পর্যন্তু দুটি জেলায় বার্ড ফ্লু প্রভাব দেখতে পাওয়া গেছে। সংক্রমণ রুখতে একগুচ্ছ নির্দেশিকা জারি করেছে কেরল সরকার। কেরলে পৌঁছেছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবকে চিঠি লিখে সতর্ক করা হয়েছে। পোলট্রি ও পুকুর ও হ্রদগুলি ট্র্যাক করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছএ সরকারকে। সংক্রমণ রুখতে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই পিপিই কিট সরবরাহ করা শুরু হয়েছে। একই সঙ্গে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের মানুষদেরও বার্ড ফ্লু থেকে সতর্ক থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বার্ড ফ্লু নিয়ে গুজব না ছড়াতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।