জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা রোদ হওয়ার এক বছর পর আবারও কেন্দ্রীয় শাসক দলের বিরুদ্ধে দ্বিচারিতার অভিযোগ তুললেন উপত্যকার নেতা ওমর আব্দুল্লাহ। তাঁর অভিযোগ বিজেপি জমায়েত করতে পারে, উদযাপন করতে পারে। কিন্তু তাঁরা তাঁর বাবার বাড়ির বাগানে জম্মু কাশ্মীরের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে নূন্যতম আলোচনাও করতে পারেন না। 

বুধবারই জন্মু ও কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ও ন্যাশানাল কনফারেন্সের সভাপতি ফারুক আব্দুল্লাহ নিজের বাসভবনে তাঁদর দলের সদস্যদের একটি বৈঠকের জন্য আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন। কিন্তু প্রশাসনের কঠোর নিষেধাজ্ঞার জন্য সেই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়নি। তারপরই এই অভিযোগ তুলেছেন ফারুক আব্দুল্লাহর ছেলে ওমর আব্দুল্লাহ। পাশাপাশি তাঁর প্রশ্ন বিজেপি কী করে ৩৭০ ধারা বাতিলের বর্যপূর্তি পালন করছে। 

ওমর আব্দুল্লাহ সোশ্যাল মিডিয়ায় বিষয়টি নিয়ে সরব হয়েছেন। তিনি আরও বলেছেন জম্মু কাশ্মীর প্রশাসন এখনও খুব ভয় পাচ্ছে। তাঁই এক বছর পরেও বিরোধীদের কোনও রাজনৈতিক কর্মসূচিতে অনুমতি দিচ্ছে না। 

মাস্ক পরেই রামলালার পুজো প্রধানমন্ত্রীর, রামমন্দির অনুষ্ঠানেও করোনা নিয়ে উদ্বে

কিন্তু কেন্দ্রীয় শাসিত অঞ্চল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার একবছর উপলক্ষ্যে বিজেপি এদিন থেকে ১৫ অগাস্ট পর্যন্ত টানা দশ দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। 

অযোধ্যায় রামমন্দির আন্দোলনে ১০ প্রভাবশালী নেতা, যাঁদের ছাড়া সম্ভব হত না রাম জন্মভূমি আন্দোলন

ওমর আব্দুল্লার অভিযোগের পাশাপাশি গুপকার এলাকার একটি ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেন। যেখানে তিনি বলেন এই রাস্তাটি এখনও ফাঁকা রয়েছে। উপত্যকাবাসীর জীবন এখনও স্বাভাবিক ছন্দে ফেরেনি বলেও তিনি অভিযোগ করেন। পাশাপাশি এনসি নেতা বিজেপির একগুচ্ছ অভিযোগ তুলে বলেন বিরোধী কোনও রাজনৈতিক নেতা নেত্রীদের যাতাযাতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হলেও বিজেপি নেতা কর্মীরা আবাধেই জমায়েত ও মিছিল মিটিং করতে পারে। কিন্তু বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের বাড়ির বাইরেই বার হতে দিচ্ছে না প্রশাসন। অভিযোগ করেন ওমর আব্দুল্লাহ। 

বেশ কয়েকটি জায়গায় নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হলেও এখনও পর্যন্ত তিন জনের বেশি মানুষকে মিলিত হতে দেওয়া হচ্ছে না। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণ দেখিয়ে কনটেন্ট জোনগুলিতে পুরোপুরি লকডাউন করা হয়েছে।