কোভিড মহামারির মধ্যে স্কুল খোলার বিষয়ে মহারাষ্ট্রের আগারি সরকারের নির্দেশের উল্টোপথে হাঁটল বিজেপি পরিচালিত বৃহন্নুম্বাই পৌর কর্পোরেশনের। মহারাষ্ট্র সরকার ২৩ নভেম্বর অর্থাৎ সোমবার থেকে রাজ্যের স্কুল খোলার নির্দেশ দিলেও, শুক্রবার, মুম্বাইয়ের পুর কমিশনার ইকবাল চাহাল জানিয়ে দিয়েছেন, বৃহন্নুম্বাই পৌর কর্পোরেশন এলাকার সমস্ত বেসরকারি, সরকারি ও পুর বিদ্যালয়গুলি ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বন্ধ থাকবে, অর্থাৎ এই বছর আর খুলবে না।

আরও পড়ুন - এক ক্লিকেই বিজেপির থেকে সুরক্ষা, 'বাংলা বাঁচাও' প্রচার কি বাঁচাতে পারবে মমতা-কে

আরও পড়ুন - কেন মনমোহনকেই প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন সনিয়া, ফের ঝড় তুলল ওবামা-র স্মৃতিকথা

আরও পড়ুন - 'পিসি নিশ্চিন্ত থাকুন, উত্তরবঙ্গে উঠবে গেরুয়া ঝড়' - কাজ শুরু করে দিলেন অমিত মালব্য

কোভিড মহামারিতে ভারতের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্য মহারাষ্ট্র। আর সেই রাজ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ মুম্বই শহরেই। তবে গোটা দেশের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বর্তমানে মুম্বই তথা মহারাষ্ট্রেও কোভিডের দাপট অনেকটাই কমেছে। কিন্তু, দীপাবলির সময়ে মুম্বইবাসী কোভিড বিধি বিশেষ না মানায়, ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানীতে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গের আশঙ্কা  তৈরি হয়েছে। তার প্রেক্ষিতেই স্কুল না খোলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুম্বইয়ের মেয়র কিশোরী পেদনেকর।

বিএমসি জানিয়েছে, কবে মুম্বইয়ের স্কুলগুলি খোলার অনুমতি দেওয়া হবে, তাই নিয়ে পরবর্তীকালে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কর্পোরেশনের শিক্ষা বিভাগ ডিসেম্বরের পরে আগামী শিক্ষাবর্ষটি কীভাবে শুরু করা যেতে পারে, তার একটি রোডম্যাপ তৈরি করছে। ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত স্কুল বন্ধ থাকায় প্রশাসন উপযুক্ত প্রস্তুতির জন্য অনেকটা সময় পাবে।

উল্লেখ্য, মহারাষ্ট্র রাজ্য সরকার স্কুল খোলার বিষয়ে যে নির্দেশ দিয়েছিল, তাতে বলা হয়েছিল, নিচু ক্লাসের শিক্ষার্থীদের এখনই স্কুলে আসার অনুমতি দেওয়া হবে না। ২৩ নভেম্বর থেকে খুলবে জুনিয়র কলেজ। আর স্কুলে আসার অনুমতি পাবে শুধুমাত্র নবম শ্রেণি থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা। তবে বিএমসি-কর এই নয়া নির্দেশিকার পর, মহারাষ্ট্রের অন্যান্য অংশে সোমবার থেকেই স্কুলে শিক্ষার্থীদের দেখা গেলেও, মুম্বই শহরে নতুন বছর না এলে স্কুল খোলার কোনও সম্ভাবনা নেই।