প্রায় গোটা বিশ্বজুড়েই রাজনৈতিক মহলে ঝড় তুলেছে প্রাক্তন মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার স্মৃতিকথা 'আ প্রমিসড ল্যান্ড'। মঙ্গলবারই প্রকাশিত হয়েছে বইটি। কিন্তু তার আগে থেকেই এই গ্রন্থের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। কারণ এই গ্রন্থে ওবামা প্রথমবার প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন বিশ্বজুড়ে যে সকল রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের সান্নিধ্যে এসেছিলেন, তাঁদের সম্পর্কে তাঁর ব্যক্তিগত ধারণা প্রকাশ করেছেন। এমনকী মনমোহন সিং-কেই কেন প্রধানমন্ত্রী হিসাবে বেছে নিয়েছিলেন সনিয়া গান্ধী, তাই নিয়েও মত প্রকাশ করেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

আগেই জানা গিয়েছিল, রাহুল গান্ধীকে দেখে একজন স্কুল ছাত্র বলে মনে হয়েছিল বারাক ওবামার। যে তার স্কুলের হেডমাস্টারের মন জিতে নিতে ব্যগ্র। কিন্তু, বিষয়টি সম্পর্কে তার আগ্রহ ও আবেগের অভাব রয়েছে বলে জানিয়েছিলেন তিনি। তবে, মনমোহন সিং-কে প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন তিনি। ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে তিনি “অস্বাভাবিক জ্ঞানের অধিকারী” হিসাবে বর্ণনা করেছেন। তবে প্রধানমন্ত্রী পদের জন্য মনমোহন সিং কংগ্রেস সভাপতি সনিয়া গান্ধীর কাছে ঋণী ছিলেন বলে মন্তব্য করেছেন ওবামা। কারণ, কোনওভাবেই প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে ছিলেন না মনমোহন।

আরও পড়ুন - লাদাখ মানচিত্র বিতর্ক, ভারতের কাছে লিখিতভাবে ক্ষমা চাইতে বাধ্য হল টুইটার

আরও পড়ুন - বিহার সরকার পুরো মুসলিমবিহীন, নেই একজন বিধায়কও - স্বাধীনতার পর থেকে এই প্রথম

আরও পড়ুন - জঙ্গি নিধনের নামে প্রমাণ লোপাট করল পাকিস্তান, আর কি ন্যায়বিচার পাবেন কুলভূষণ

ওবামার মতে, সনিয়ার এই বাছাইয়ের পিছনে ছিল একটিই মাত্র কারণ, তাঁর পুত্র রাহুল গান্ধী, যাকে তিনি তাঁর উত্তরাধিকারী হিসাবে গড়ে তুলেছেন, তার রাজনৈতিক ভবিষ্যত সুরক্ষিত করা। ওবামা তাঁর স্মৃতিকথায় বলেছেন, একাধীক রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক আগে থেকেই জানতেন যে সনিয়া গান্ধী মনমোহন সিং-কেই বেছে নেবেন। কারণ তিনি একজন প্রবীন বয়স্ক শিখ, জাতীয় রাজনীতিতে তাঁর কোনও জনভিত্তিও নেই। কাজেই তিনি প্রধানমন্ত্রী হলে রাহুল গান্ধীর রাস্তা নিষ্কন্টকই থাকবে বলে মনে করেছিলেন সনিয়া। কারণ রাহুলকেই তিনি কংগ্রেস পার্টির ভার নেওয়ার জন্য প্রস্তুত করেছিলেন।

বস্তুত, মনমোহন সিং-কে প্রধানমন্ত্রী বাছাই নিয়ে ভারতে বিস্তর জলঘোলা রয়েছে। অনেকেই মনে করেন বিজেপি-র 'বিদেশিনী' প্রচারের জন্যই শেষ পর্যন্ত নিজে  প্রধানমন্ত্রী হননি সনিয়া। তবে সেই সময়ে কংগ্রেসে নাম্বার টু ছিলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর গন্ধে চঞ্চল হয়েছিল বাংলাও। তবে শেষ পর্যন্ত সেই আশায় জল ঢেলে মনমোহনকে প্রধানমন্ত্রী করেছিলেন সনিয়া। আর প্রণব হয়েছিলেন অর্থমন্ত্রী।

ওবামার বইয়ের এই অংশ নিয়ে রাহুলকে নিশানা করতে দেরি করেনি বিজেপি। বিজেপি মুখপাত্র সম্বিত পাত্র জানিয়েছেন, তাঁর মতে অন্য কেউ নয়, রাহুল গান্ধীই তাঁর নিজের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি। নিজেই নিজেকে শেষ করেছেন প্রাক্তন কংগ্রেস সভাপতি, টুইট করে বলেছেন সম্বিত।

এর আগেই ওবামার বইয়ে রাহুল সম্পর্কে মতামত নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছিলেন কংগ্রেস নেতারা। রাহুল গান্ধীকে কতটুকু দেখেছেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট, এই ধরণের মন্তব্য করেছিলেন একাধিক কং নেতা। সনিয়ার প্রধানমন্ত্রী বাছাই নিয়ে বামার এই মন্তব্যের কী প্রতিক্রিয়া দেন তাঁরা, সেটাই দেখার।