করোনায় বদলে দিল জীবন। থুড়ি বিয়ের আসর। কারণ  ঝলমলে ঘাররা ছিল না পাত্রীর পরনে। উল্টে নিতান্তই সাদামাটা পিপিই কিট পরেই বিয়ের আসরে বসতে হল তাঁকে। একই অবস্থা পাত্রের। শেরওয়ানি নয় তিনিও পরেছিলেন পিপিই কিট।  রবিবার রাজস্থানে শাহবাদ এক দম্পতি বিয়ে সারলেন পিপিই কিট পরে। শুধু দম্পতি নয় যে দুই পুরোহিত বিয়ের আসরে উপস্থিত ছিলেন তাঁরাও পিপিই কিট ব্যবহার করেছিলেন। আর বিয়ে হয়েছে কোনও বিয়েবাড়িতে নয়, সংক্ষিপ্তি বিয়ের আসর বসেছিলে করোনা সেন্টারে। আর সেই ভিডিও ভাইরাল নেটদুনিয়ায়। 

এএনআই জানিয়েছে শাহবাদের বড়ার কোভিড সেন্টারে এই বিয়ের আসর বসেছিল। আর দম্পতি বিয়ের আগে করোনা পরীক্ষাও করিয়েছিলেন। পাত্রী করোনা পজেটিভ বলেই জানা গেছে। আর সেই রিপোর্ট এসেছে বিয়ের দিন। তাই বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করা হলেও যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করা হয়েছে বলেই দম্পতির আত্মীয়রা জানিয়েছেন। 

ফাইজারের পর এবার আসরে সেরাম, ভারতে করোনা-টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমতি দাবি ...

আরও এক নক্ষত্র পতন কংগ্রেসে, বিজেপিতে যোগদান করে বৃত্তপূর্ণ করতে চলেছেন দক্ষিণী অমিতাভ ...

আর ভিডিওটিতে দেখা গেছে বর-কনে দুজনেই সংক্রমণ রুখতে রীতিমত কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। তাঁরা পিপিই কিট, গ্লাভস, মাস্ক পরেছিলেন। প্রথা মেনে বর অবশ্য পিপিই কিটের ওপরেই একটি পাগড়ি পড়েছিল। গ্লাভস পরেই মালাবাদল থেকে সম্প্রদান সব কিছুই হল। এমনিতেই রাজস্থানে এই সময় বিয়ের আসর বসে তুলনামূলক ভাবে বেশি। কিন্তু মরামারির এই আহবে বিয়ের অনুষ্ঠানে অনুমতি দেওয়ার বিষয় যথেষ্ট সচেতন প্রশাসন। আমন্ত্রণ থেকে করোনা স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা সবই খতিয়ে দেখছে তারা। প্রয়োজনে জরিমানাও ধার্য করা হতে পারে বলে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় এই দম্পতি একটি অন্য নজির তৈরি করলেন বলা যেতেই পারে।