২৬ নভেম্বর ছিল ভারতের 'সংবিধান দিবস'। ওইদিন ন্যাশনাল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন লিমিটেড বা এনএসআইসি-র সিএমডি, আইএএস অফিসার শ্রী বিজয়েন্দ্র সংবিধানের প্রস্তাবনাটি পাঠ করেন। তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছিলেন এনএসআইসি-র সব কর্মচারীরাও। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, পি অ্যান্ড এম-এর ডিরেক্টর পি উদয়কুমার এবং এনএসআইসি-র অর্থ বিভাগের ডিরেক্টর গৌরাঙ্গ দীক্ষিত। দেশের নাগরিকদের মধ্যে সাংবিধানিক মূল্যবোধের প্রচারের জন্য 'সংবিধান দিবস' পালন করা হয়।

আরও পড়ুন - ভ্যাকসিনের তদারকিতে তিন শহরের তিন গবেষণাগারে প্রধানমন্ত্রী, দেখুন ছবিতে ছবিতে

আরও পড়ুন - প্যাংগং হ্রদে মোতায়েন 'মার্কোস' বাহিনী, সেনা ও বায়ুসেনার পর কেন নৌসেনা এল লাদাখে

আরও পড়ুন - মাটি খুঁড়লেই বের হচ্ছে 'হীরা' - শোরগোল গোটা নাগাল্যান্ডে, সরকার দিল তদন্তের নির্দেশ

ন্যাশনাল স্মল ইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশন লিমিটেড বা এনএসআইসি একটি মিনি রত্ন রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা। ১৯৫৫ সালে ভারত সরকার এই সংস্থার প্রতিষ্ঠা করেছিল। ভারতের মাইক্রো, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ মন্ত্রকের অধীনে কাজ করে এই সংস্থা। এনএসআইসি হ'ল এমএসএমই মন্ত্রকের বিভিন্ন স্কিম যেমন পারফরম্যান্স এবং ক্রেডিট রেটিং, সিঙ্গল পয়েন্ট রেজিস্ট্রেশন, এমএসএমই ডাটাব্যাঙ্ক, ন্যাশনাল এসসি এসটি হাব ইত্যাদির নোডাল অফিস।

১৯৪৯ সালের ২৬ নভেম্বর ভারতের গণপরিষদ, ভারতের সংবিধান গ্রহণ করেছিল। আর ১৯৫০ সালের ২৬ জানুয়ারি এটি কার্যকর করা হয়। সংবিধান গ্রহণের সেই দিনটিকে স্মরণ করতেই প্রতিবছর এই দিনে ভারতে সংবিধান দিবস পালিত হয়। এই দিনটি জাতীয় আইন দিবস নামেও পরিচিত। ২০১৫ সালের ১১ অক্টোবর মুম্বইয়ে বিআর আম্বেদকের মূর্তি বা স্ট্যাচু অব ইক্যুয়ালিটি স্মৃতিসৌধের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপনের সময় ২৬ নভেম্বর দিনটিকে সংবিধান দিবস হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ওই বছর সংবিধানের খসড়া তৈরিতে অগ্রণী ভূমিকা পালনকারী আম্বেদকের ১২৫তম জন্মবার্ষিকী ছিল। তার আগে দিনটি শুধু জাতীয় আইন দিবসল হিসাবেই পরিচিত ছিল।