মোদী সরকারের আনা তিনটি কৃষি বিলের তীব্র বিরোধিতা করেছে কংগ্রেস। কিন্তু একটা সময় ছিল কংগ্রেস কৃষি আইন বদলের জন্য উঠেপড়ে লেগেছিল। সেই সময় কংগ্রেসের দাবি ছিল কৃষকরা তখনই লাভবান হবে যখন কোনও মধ্যবর্তী সুবিধেভোগীদের ছাড়াই তারা নিজেদের তৈরি ফসল বিক্রি করতে পারবে।  বর্তমানে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যেখানে কংগ্রেস কৃষি আইন বদলের দাবিতে সরব হয়েছে। যেখানে প্রক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, সনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীকে ভাষণ দিতে দেখা গেছে। রাহুল যখন এফডিআই-এর পক্ষে সওয়াল করছেন, তখন সনিয়া গান্ধী কৃষকদের উন্নয়ন থামিয়ে দেওয়ার জন্য মধ্যসত্ত্বভোগীদের ওপরই দায় চাপাচ্ছেন। 

নরেন্দ্র মোদীর সরকার যে নতুন তিনটি কৃষি আইন লাগু করেছে সেখানে বলা হয়েছে কৃষকরা নিজেদের ইচ্ছে মত যেকোনও জায়গায় যেকোনও ব্যক্তির কাছে তাঁদের তৈরি ফসল বিক্রি করতে পারবে। কিন্তু এই নতুন আইনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে কংগ্রেস। নতুন আইন প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে শুক্রবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গে দেখা করেছিলন রাহুল গান্ধী। তিনি জানিয়েছেন কৃষি আইন প্রত্যাহারের সমর্থনে তাঁর কাছে ২ কোটি কৃষকের সমর্থন স্বাক্ষর রয়েছে। কিন্তু এই রাহুল গান্ধীও কৃষিক্ষেত্রে বিদেশী লগ্নির দাবিতে সরব হয়েছিলেন। তিনি বলেছেন দেশে উৎপাদিত ৬০ শতাংশ সবজি নষ্ট হয়ে যায়। তাই খুচরো বাজারে বিদেশী লগ্নির দাবি জানান হয়েছিল। 

অন্যদিকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং সর্বদাই এফডিআই-এর পক্ষে সওয়াল করতেন। তিনি বলেছিলেন, কৃষকদের স্বার্থরক্ষার জন্য  খুচরো বাজারে সরাসরি বিদেশি লগ্নির প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। এফডিআই কার্যকর হলে কৃষকরা অনেকটাই উপকৃত হবেন। তিনি আরও বলেছেন,  দেশে উৎপাদিত অনেক শস্য নষ্ট হয়। আর সেই ক্ষতির মুখ দেখতে হয় কৃষকদের। কিন্তু কৃষকরা যদি সরাসরি ফসল বিক্রি করতে পারেন তাহলে তাঁরাই উপকৃত হবেন বলেও দাবি করেছিলেন তিনি। তিনি আরও বলেছিলেন কংগ্রেসে কৃষকদের স্বার্থেই এফডিআই চালু করতে চাইছে। 

অনেকটাই একই সুর ছিল সনিয়া গান্ধীর। তিনি বলেছিলেন, বলে ছিলেন কৃষকরা বেশি দামে তাদের তৈরি ফসল বিক্রি করতে পারবে, সেটাই গোটা দেশের কাম্য হওয়া উচিৎ। বর্তমানে কৃষকদের বড় শহরে গিয়ে ফসল বিক্রি করা সম্ভব হয় না। আর সেই কারণে মধ্যসত্ত্বভোগী বা দালালদের সাহায্য ছাড়াই কৃষকরা যাতে ফসল বিক্রি করতে পারেন সেদিকেই নজর দেওয়ার কথা বলেছিলেন তিনি। কিন্তু সেপ্টেম্বর সংসদে কৃষি বিল পাশ হওয়ার পর থেকেই তীব্র বিরোধিতার পথে নেমেছে কংগ্রেস। নিত্যদিনই রাহুল গান্ধী নিশানা করছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে। পাশাপাশি আন্দোলনকারী কৃষকদের সমর্থনেও একগুচ্ছ কর্মসূচি গ্রহণও করেছে কংগ্রেস।