Asianet News BanglaAsianet News Bangla

পার্থ-অর্পিতাকেও ছাড়িয়ে গেল কানপুরের ব্যবসায়ী, রাশি রাশি বাজেয়াপ্ত টাকা নিয়ে যেতে লাগল কন্টেনার

আয়কর বিভাগ ও জিএসটি যৌথ উদ্য়োগে তল্লাশি। তাতেই কানপুরে সুগন্ধী ব্যবসায়ীর বাড়ি  থেকে উদ্ধার হল ১৫০ কোটি নগদ টাকা। টাকা বয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি কন্টেনার আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার  অভিযান শুরু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলে তল্লাশি।

Container used to carry Rs 150 crore recovered by tax officials  in kanpur raid bsm
Author
Kolkata, First Published Aug 7, 2022, 11:34 PM IST

আয়কর বিভাগ ও জিএসটি যৌথ উদ্য়োগে তল্লাশি। তাতেই কানপুরে সুগন্ধী ব্যবসায়ীর বাড়ি  থেকে উদ্ধার হল ১৫০ কোটি নগদ টাকা। টাকা বয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি কন্টেনার আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার  অভিযান শুরু হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টারও বেশি সময় ধরে চলে তল্লাশি। উদ্ধার হওয়া টাকা গোনার জন্য একটি মেশিনও আনা হয়েছিল। এখানেই শেষ নয় উদ্ধার হওয়া টাকা ভর্তি কন্টেনারটি যখন ব্যাঙ্কের উদ্দেশ্য যখন রওনা দেয় তখন দুই গাড়ি ভর্তি পুলিশ পাঠাতে হয় নিরাপত্তার জন্য। সঙ্গে দেওয়া হয়েছিল ব়্যাপিড অ্যাকশন ফোর্স বা ব়্যাপও। 

অন্যদিকে জিএসটি ইন্টেলিজেন্সের আহমেদাবদ ইউনিটের কানপুরের ত্রিমূর্তি ফ্রাগ্রেন্স প্রাইভেট লিমিটেড কারখানাতে ও গণপতি রোড ক্যারিয়ারের অফিস ও গোডাউনে তল্লাশি অভিযান শুরু করেছে।  আধিকারিকরা জানিয়েছেন পণ্য সরানোর সময় ই-ওয়ে বিল তৈরি যাতে না করতে হয় তারজন্য ট্রান্সপোর্টার অস্তিত্বহীন সংস্থাগুলির নাম একাধিক চালান তৈরি করে। ট্রাক পিছু দেওয়া হয়ে মাত্র ৫০ হাজার টাকা। যা আসল পণ্য পরিবহণের তুলনায় অনেকটাই বেশি। তদন্তকারীরা আরও জানিয়েছেন, সংস্থাটি বেআইনিভাবে পণ্য সরবরাহের মাধ্যমেও প্রচুর টাকা আয় করেছিল। কমিশন পদ্ধতিতে হত আয়। কারখানার সামনে দাঁড়িয়ে থাকা এজাতীয় প্রায় চারটি ট্রাকও তদন্তকারীরা আটক করেছিল। জিএসটি স্ট্যাম্প ছাড়াই এভাবে পণ্য সরবরাহ করা হচ্ছিল দিনের পর দিন ধরে। 

কানপুরে আয়কর কর্তাদের অভিযানের সময় উত্তর প্রদেশের প্রথম সারির ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত পীযূষ জৈনের বাড়ির বাইরে পুলিশ পাহারা দিয়েছিল। জিএসটি প্রদান ছাড়াই পণ্য পরিবহনের জন্য ব্যবহৃত ২০০ টিরও বেশি জাল চালানও পরিবহনকারী গণপতি রোড ক্যারিয়ারের প্রাঙ্গণ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। পরিবহণকারীর দখল থেকে নগদ ১.০১ কোটি টাকা জব্দ করা হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। ব্যবসায়ী পীযূষ জৈনের বাড়ি থেকেই নগদ ও সুগন্ধীর যৌথ সরবরাহ হত। তাঁর বাড়ি থেকেও উদ্ধার হয়েছে প্রচুর নগদ টাকা। 

এই রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ট বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের দুটি  বাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল নগজ ৫০ কোটি টাকা। যা গুণতে নিয়ে আসা হয়েছিল মেশিন ও ব্যাঙ্ক কর্মীদের। আর সেই টাকা নিয়ে যাওয়ার জন্য একটি লরি প্রয়োজন ছিল। কিন্তু এক্ষেত্রে তার থেকেও অনেক বেশি টাকা উদ্ধার হওয়ার জন্য নিয়ে আসা হয়েছিল একটি আস্ত কন্টেনার।  

নীতি আয়োগের বৈঠেক হাত জোড় করে সৌজন্য মমতা-মোদীর, জাতীয় শিক্ষানীতি নিয়েও আলোচনা

সোনা পেলেন নিখাত জারিন- ছবি উড়ল মুখ্যমন্ত্রীর, কমনওয়েলথ গেমসের আসরে নতুন বিতর্ক
  কংগ্রেস-তৃণমূল কংগ্রেসের বিবাদ ২০২৪এর জন্য মোটেও শুভ ইঙ্গিত নয়, বললেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios