করোনাভাইরাস সংক্রমণ রুখতে মাস্ক পরা প্রায় বাধ্যতামূলক হয়ে উঠেছে দেশে। আনলক পর্ব শুরু হওয়ার পর থেকেই মাস্ক পরার ওপর জোর দেওয়া হচ্ছে। প্রতিটি ব্যক্তির নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই সরকারি ও বেসরকারি স্তরে মাস্ক পরার আবেদন জানান হয়েছে। কিন্তু মাস্ক পরতে বলে চরমতম বিড়ম্বনায় পড়তে হল এক মহিলাকে। আর সেই ঘটনার সাক্ষী সিসিটিভি ফুটেজ ভাইরাল হয়ে ছড়িয়ে পড়েছে নেট দুনিয়ায়। 

গত শনিবার অর্থাৎ ২৭ জুন সেই ভয়ঙ্কর ঘটনাটি ঘটেছে অন্ধ্র প্রদেশের নেল্লোরের একটি সরকারি অফিসে। যেখানে মাস্ক পরতে বলে শুধু অপদস্থ নয় সহকর্মীর হাতে মার খেতে হয়েছে এক বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মহিলা কর্মীকে। মহিলা কর্মীকে চুল ধরে টেনেহিচড়ে চেয়ার থেকে ফেলে দেওয়া হয়। তারপর একটি লোহার রড দিয়ে বেধড় পেটানো হয় মহিলা কর্মীরা। দফায় দফায় মারধর করা হয় মহিলাকে। 

অভিযুক্ত অন্ধ্র প্রদেশ পর্যটন দফতরের অধীনে নেল্লোরের একটি হোটেলের ডেপুটি ম্যানেজার ভাস্কর। বিনা মাস্কেই ভাস্কর অফিসে ঘুরে বেড়াচ্ছিল। যার প্রতিবাদ করেছিলেন মহিলা। আর ভাস্করকে মাস্ক পরতে বলেছিলেন। তারপরই অভিযুক্ত নিজের কেবিন থেকে বেরিয়ে এসে চড়াও হয় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন মহিলার ওপর। অভিযুক্তকে নিরস্ত্র করতে রীতিমত বেগ পেতে হয় অন্যান্য পুরুষ সহকর্মীদের। সিসিটিভি ফুটেজের ওই ছবি ভাইরাল হয়ে যায় নেট দুনিয়ায়। 

সমস্ত দায় নিতে হবে ভারতকেই, চিনা অ্যাপ ব্যান করায় বেজায় চটে হুমকি বেজিং-এর ...

সীমান্ত বৈঠক চলাকালীন 'সবথেকে খারাপ পরিস্থিতির জন্য' তৈরি ভারত, গালওয়ানে মোতায়েন ৬টি টি-৯০ ট্যাঙ্ক ...


আনলক ১.০ থেকে অন্ধ্র প্রদেশে সমস্ত সরকারি অফিস খুলে দেওয়া হয়েছে। প্রত্যেক কর্মীর ক্ষেত্রেই মাস্ক পরে অফিসে আসা বাধ্যতামূলক করা হয়েছিল। কিন্তু ভাস্কর নামে এই কর্মী নিয়ম মানতে চায়নি বলেই অভিযোগ। আক্রান্ত মহিলা পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছে। গ্রেফতার করা হয়েছে ভাস্করকে। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে ৩৫৪,৩২৪ ধারায় মামলা দায়ের হয়েছে।  পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেওয়া হবে আশ্বাস দিয়েছেন অন্ধ্র প্রদেশের পর্যটন মন্ত্রী।