অগাস্টের দ্বিতীয় দিনে দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা রেকর্ড তৈরি করল। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় এদেশে আক্রান্ত হয়েছেন ৫৪,৭৩৫ জন। দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৭,৫০,৭২৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৮২৩ জনের। দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৭৩৬৪ জন। 

গত মঙ্গলবারই দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১৫ লক্ষ ছাড়িয়েছিল। আর রবিবার সকালেই স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ পার করেছে। মাত্র পাঁচ দিনে দেশে আক্রান্ত হয়েছে ২ লক্ষেরও বেশি মানুষ। বিশেষজ্ঞরা অবশ্য আগেই জানিয়েছিলেন অগাস্ট ও সেপ্টেম্বর থেকেই দেশে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহ আকার নেবে। তাহলে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে এটাই কি করোনাভাইরাস সংক্রমণের চূড়া। 

গত জানুয়ারি মাস থেকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করছে দেশ। মাত্র ১৮৫ দিনে আগে দেশে প্রথম করোনা আক্রান্তের হদিশ পাওয়া গিয়েছিল। কেরলের এক চিন ফেরত ছাত্র আক্রান্ত হয়েছিলেন। ১৮৫ দিনের মধ্যেই দেশে আক্রান্তের সংখ্যা ১৭ লক্ষ ছাড়়িয়েছে। করোনাভাইরাসের আক্রান্ত রাজ্যগুলির তালিকায় এখনও পর্যন্ত প্রথম স্থানে রয়েছে মহারাষ্ট্র। আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লক্ষেরও বেশি। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তামিলনাড়ু। আক্রান্তের সংখ্যা আড়াই লক্ষেরও বেশি। তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে রয়েছে অন্ধ্র প্রদেশ ও দিল্লি। দুটি রাজ্যেই আক্রান্ত হয়েছেন লক্ষাদিক মানুষ। আক্রান্তের তালিকায় প্রথম পাঁচটি রাজ্যের মধ্যে তিনটি দক্ষিণভারতের রাজ্য। কারণ কর্ণাটকে আক্রান্তের সংখ্যাও এক লক্ষ ছাড়িয়েছে। 

পঞ্চম দফার আলোচনায় প্যাংগং মূল অ্যাজেন্ডা হতে পারে, মোলডোতে আজ ভারত-চিন সামরিক বৈঠক ...

করোনা-মৃত্যের দৌড়ে ইতালিকে পিছনে ফেলল ভারত, সুস্থতার হারকেই হাতিয়ার কেন্দ্রের ..
স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত দেশে সুস্থ হওয়া মানুষের সংখ্যা ১১.৪৫ লক্ষ, সুস্থতার হার ৬৫.৪৩ শতাংশ। এখনও পর্যন্ত ১,৯৮,২১,৮৩১ নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। যার মধ্যে আক্রান্তের হার ১১.৮১ শতাংশ। 

মার্কিন করোনা প্রতিষেধকে চিনা হ্যাকারদের নজর, মডার্নার তথ্য নষ্টের চেষ্টার অভিযোগ ...