প্রায় ২০ দিন পর বাড়ি ফিরেছিলেন মহিলা চিকিৎসক। করোনা যোদ্ধা তিনি। ২০ দিন ছিলেন হাসপাতালে। দায়িত্ব সামলেছেন আইসিইউ ওয়ার্ডের। যেখানে ভর্তি ছিলেন গুরুতর সংক্রমিত করোনা রোগীরা। দীর্ঘদিন টানা ডিউটির ধকল ছিল। কিন্তু বাড়ি ঢোকার আগে তিনি যে অভ্যর্থনা পেলেন তা হয়তো তাঁর সব ক্লান্তিই কাটিয়ে দিয়েছে নিমেশে। শুধু মহিলা চিকিৎসকের পরিজনরাই নয়। আবাসনের অধিকাংশ বাসিদ্ধাই ফ্ল্যাটের নিচে নেমে এসে মহিলা চিকিৎসককে স্বাগত জানিয়েছেন। তবে সবটাই হয়েছে স্বাস্থ্য বিধি মেনে। আবাসনের প্রত্যেক বাসিন্দাই মাস্ক ব্যবহার করেছিলেন। বজায় রেখেছিলেন নিরাপদ দূরত্ব। ফুল আর মালায় তাঁরা স্বাগত জানান তাঁদের আবাসনের বাসিন্দা করোনা যোদ্ধাকে। আর এমন অভ্যর্থনা পেয়ে দুচোখের কোনে জল জমে ওঠে চিকিৎসকের। 

ভাইরাল এই ভিডিওটি শেয়ার করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। একই সঙ্গে তিনি লিখেছেন, এই মুহূর্তগুলিই হৃদয়কে আনন্দ দেয়। এটাই ভারতীয়দের চেতনা। করোনা লড়াইয়ে জিতবে গোটা দেশ। সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে যাঁরা লড়াই করছেন তাঁদের নিয়ে চিরকালই দেশ গর্ব বোধ করবে।

 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের বিরুদ্ধে সামনের সারিতে দাঁড়িয়ে লড়াই করছেন চিকিৎসক নার্স আর স্বাস্থ্য কর্মীরা। প্রথম দিন থেকেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁদের করোনা যোদ্ধা হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। জনতা কারফিউর দিনই দেশের সমস্ত চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য কর্মী ও জরুর পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের উদ্দেশ্যে থালা বাজিয়ে গোটা দেশ তাদের স্বাগত জানিয়েছে। কিন্তু তারপরেও একাধিকবার সামনে এসেছে তাঁদের ওপর হয়ে চলা হেনস্থার কথা। ইন্দোর থেকে মোরাদাব একাধিক জায়গায় মারধর করাহয়েছে চিকিৎসকের ওপর। হাওড়ায় জরুরী পরিষেবা দিতে গিয়ে আক্রান্ত হয়েছেন পুলিশও। কিন্তু এই ছবি সম্পূর্ণ অন্য গল্পই বলল।  

আরও পড়ুনঃ করোনা থাবা বসাচ্ছিল উদ্ধবের সিংহাসনে, প্রধানমন্ত্রীর ফোনের পরই ফিরছে স্থিতাবস্থা ...

আরও পড়ুনঃ অভিবাসী শ্রমিকদের জন্য সুখবর, আটকেপড়াদের বাড়ি ফেরাতে বিশেষ ট্রেন রেল মন্ত্রকের ...

আরও পড়ুনঃ লকডাউনের ভারতে বাড়ি ফেরা থেকে বিয়ে করতে যাওয়া, সবেতেই ভরসা সাইকেল ...