আস্থা ভোটের আর ২৪ ঘণ্টাও বাকি নেই। তার আগে আরও একবার ধাক্কা খেল কংগ্রেস। রবিবার পরপর দুই বিধায়ক ইস্তফা দিলেন। এক জন কংগ্রেসের, অন্যজন জোটসঙ্গী ডিএমক-র। আর তাতেই আস্থাভোটের আগে যাদু সংখ্যা থেকে ক্রমশই দূরে সরে যাচ্ছে কংগ্রেস। পদুচেরিতে কংগ্রেসের মূল প্রতিপক্ষ বিজেপি। আগামিকাল অর্থাৎ সোমবার বিকেল পাঁচটায় এই রাজ্যে আস্থাভোট। তারআগে সরকার পক্ষের দুই বিধায়কের ইস্তফা রীতিমত শাসক শিবিরের কাছে বড় ধাক্কা বলেও মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কাল আস্থাভোটে কংগ্রেস ও বিজেপি কেউ যদি সংখ্যা গরিষ্ঠতা প্রমান করতে না পারে তাহলে রাষ্ট্রপতি শাসনের দিকেই এগিয়ে যাবে পদুচেরি। 

রবিবার কংগ্রেস বিধায়ক লক্ষ্মীনারায়ণ ইস্তফা দেন। চার বারের বিধায়কের অভিযোগ দল তাঁকে ও তার কাজকে কোনও রকম স্বীকৃতি দেয়নি। আর সেই কারণে দল ও পদ থেকে তিনি ইস্তফা দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন। তাঁর পরেই বিধায়ক পদ থেকে ইস্তফা দেন ডিএমকে-র টিকিটে জয়ী ভেঙ্কটসান। তবে এখনও পর্যন্ত তিনি কোনও বিবৃতি দেননি। শাসকগদলের বিধায়কদের পরপর পদত্যাগের পর বিধানসভায় কংগ্রেসের জোট সরকারের শক্তি ২৬ থেকে ১২তে নেমে এসেছে। অন্যদিকে বিজেপি ও তারজোটসঙ্গীদের বিধায়ক সংখ্যা বর্তমান শাসকদলের তুলনায় বেশি বলেও দাবি করা হয়েছে। 


মূলত দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ জানিয়েছে ইস্তফা দিয়েছিলেন কংগ্রেস বিধায়ক লক্ষ্মীনারায়ণ। তাঁর কথায় স্পষ্ট স্পিকার না করার জন্যই তিনি ইস্তফা দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন ঘনিষ্টদের সঙ্গে পরামর্শ করেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি। তবে এই পরিণতির জন্য তাঁর কোনও দায় নেই বলেও জানিয়েছেন তিনি। অন্যদিকে কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রী ভি নারায়ণস্বামীর অভিযোগ গোয়া, মণিপুর, কর্ণাটক মধ্যপ্রদেশ আর অরুণাচলের পর এবার নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের নজর পড়েছে পদুচেরির দিকে। রাজ্যের নির্বাচিত সরকারকে ভেঙে ফেলতে বিজেপির শীর্ষনেতৃত্ব তৎপর বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।