মার্কিন সেনা ও তাগদের আফগান সহযোগীদের বিমান হানায় আফগানিস্তানে মৃত্যু হয়েছে কেরলের আট আইএস জঙ্গির। ২০১৬ সালেই এনআইএ জানিয়েছিল কেরল থেকে মোট ২৩ জনের একটি দল আইএস-এ যোগ দিতে আফগানিস্তানে গিয়েছে। তারপর থেকে কেরলে একের পর এক আইএস সম্পর্কিত ঘটনার তদন্তে নেমেছে ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেটিং এজেন্সি।

শুক্রবার এনাআইএর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আফগানিস্তানে পারি দেওয়া ওই ২৩ জন ছিল পূ্ব নানগারহার প্রদেশে। সেখানেই মার্কিন বিমান হানার কবলে ৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্য়ে একই পরিবারের তিন ভাই আছেন। এছাড়া আরো দুই মহিলা ও চার শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এরা হলেন - মুর্শিদ মহম্মদ টিকে, মহম্মদ মারওয়ান, হাফেসুদ্দিন থেকে কোলেথ, মহম্মদ মানজাদ, শিহাস কেপি, আজমলা, বেস্তিন এবং শিবি কেটি।

এনআইএ আরও জানিয়েছে মৃত জঙ্গিদের আইএস হ্যান্ডলাররাই তাদের বাড়িতে মৃত্য়ুসংবাদ দিয়েছে। সেই সূত্রেই এদের মৃত্যুর খবর জানতে পেরেছে এনআইএ। তবে শুধু এই জঙ্গিরাই নয়, আরও একটি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে কেরলে আইএস সদস্য সংগ্রাহক রশিদ আবদুল্লা-রো। আফগানিস্তানে থাকা কেরলের আইএস জঙ্গিদের দলটির নেতৃত্ব দিত সে। আফগানিস্তানের খোরসান প্রদেশে তার মৃত্যু হয়। এর ফলে কেরলে আইএস-এর প্রভাব বিস্তার অনেকটাই ধাক্কা খাবে বলে আশা জাতীয় তদন্তকারী সংস্থার।