ভারত-চিন সীমান্তে  পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। দেরাদুনের ইন্ডিয়ান মিলিটারি অ্যাকাডেমিতে পাসিং আউট প্যারেডে অংশ নিতে গিয়ে এমনটাই দাবি করলেন ভারতের  সেনা প্রধান জেনারেল মনোজ মুকুন্দ নারাভানে।  সেনা প্রধান এদিন স্পষ্টতই জানান, ইন্দো-চিন বৈঠকের মাধ্যমে সীমান্ত সমস্যা মেটানো হচ্ছে। কিছু সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল সেগুলো ধীরে ধীরে মিটবে। তবে তা সময় সাপেক্ষ। সেইসঙ্গে নারাভানের এই বার্তার সঙ্গেই স্পষ্ট হয়ে গেল,  লাদাখে ইন্দো-চীন যে সমস্যা তৈরি হয়েছে তা এখনও অব্যাহত এবং এত সহজে মিটবে না। তবে তিনি আশ্বস্ত করে জানিয়েছেন সেখানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। 

আরও পড়ুন: করোনা দেশে আসার আগেই পরিস্থিতি আঁচ করেছিলেন মোদী, ফাঁস করে দিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী

সেনা প্রধান বলেন, "আমি সবাইকে নিশ্চিত করে বলতে চাই যে চিনের সঙ্গে আমাদের সীমান্তে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আমার ওদের সঙ্গে কথা চালিয়ে যাচ্ছি। কর্পস কমান্ডার স্তরের পর মেজর জেনারেল পর্যায়েও আলোচনা হয়েছে। ফলস্বরূপ, উত্তেজনা কমেছে। এবং আমরা আশাবাদী যে চলমান আলোচনার মধ্য দিয়ে আমরা (ভারত এবং চিন) সব কিছু মিটে যাবে। সব কিছুই নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।"

 

সেনা প্রধান আরও বলেন যে উভয় পক্ষ (ভারত ও চিন) পর্যায়ক্রমে সেনা পিছিয়েছে। আমরা উত্তর থেকে শুরু করেছি, গালওয়ান নদী অঞ্চল থেকে সেনা পিছিয়ে এসেছে। দুই দেশের ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। এবং এটি অব্যাহত থাকবে এবং আলোচনা এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিস্থিতির উন্নতি হবে।"

আরও পড়ুন: কাশ্মীরে ভারতীয় সেনার জোড়া সাফল্য, পৃথক ২টি এনকাউন্টারে নিকেশ ৪ জঙ্গি

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ৫ মে পূর্ব লাদাখ এলাকা দিয়ে ভারত-চীন সীমানা পেরিয়ে ভারতে প্রবেশের চেষ্টা করে চিনা সৈন্যরা। পাল্টা রুখে দাঁড়ায় ভারতীয় সেনারা। সেদিন থেকেই এই সীমান্ত সংলগ্ন এলাকায় উত্তেজনা বজায় রয়েছে। এদিন জম্মু কাশ্মীর ও নেপাল ইস্যুতেও মুখ খুলেছেন এমএম নারাভানে। লিপুলেখ গিরিপথ, লিম্পিয়াধুরা ও কালাপানিকে নিজেদের অংশ হিসাবে দেখিয়ে সম্প্রতি নতুন মানচিত্র প্রকাশ করেছে নেপাল। এনিয়ে ভারত আপত্তি জানালেও তারা নিজেদের সিদ্ধান্তেই অনড় থাকবে বলে জানিয়েছে কাঠমান্ডু। 

 

তবে ভারত-নেপাল সম্পর্কের বিষয়ে কথা বলতে গিয়ে সেনা প্রধান বলেন, "দক্ষিণ এশিয়ার দুই দেশের সম্পর্ক মজবুত রয়েছে এবং ভবিষ্যতেও তাই থাকবে। নেপালের সাথে আমাদের খুব মজবুত সম্পর্ক রয়েছে। আমাদের ভৌগলিক, সাংস্কৃতিক, ঐতিহাসিক, ধর্মীয় যোগসূত্র রয়েছে। মানুষে মানুষে যোগ রয়েছে। নেপালের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক বরাবরই মজবুত। ভবিষ্যতেও তাই থাকবে।"