পাকিস্তানের সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়বে ভারত! এও কি সম্ভব? যারা প্রতিদিন যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে সীমান্তের ওপার থেকে অবিরাম গোলা ছুড়ে যাচ্ছে, জম্মু-কাশ্মীরের শান্তি বিঘ্নিত করতে জঙ্গিদের নিয়মিত মদত দিয়ে যাচ্ছে - তাদের সঙ্গে একসঙ্গে যুদ্ধ? এই অবিশ্বাস্য বিষয়ই সম্ভব করেছে এক সাধারণ শত্রু। কথায় বলে না শত্রুর শত্রু বন্ধু হয়। সেইরকমভাবেই অন্যান্য ক্ষেত্রে ভারত-পাকিস্তান যুযুধান হলেও এইক্ষেত্রে তারা একসঙ্গে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সঙ্গে থাকবে ইরান এবং আফগানিস্তান-ও।

আরও পড়ুনন - ফসল নষ্ট করছে পাকিস্তানের পঙ্গপাল, বিশেষ দল পাঠালেন মোদী

এই চার দেশেই এখন বিশাল অঞ্চল জুড়ে হানা দিয়েছে পঙ্গপালের দঙ্গল। লক্ষ লক্ষ একর জমির ফসল সাফ করে দিচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন গত তিন দশকের মধ্যে এই অঞ্চলে এত ভয়াবহ পঙ্গপালের হামলা আর হয়নি। আর এই সাধারণ শত্রুর মোকাবিলার কৌশল গ্রহণের জন্যই আগামী ১১ মার্চ ভারত, পাকিস্তান, ইরান এবং আফগানিস্তান - এই চার দেশ বৈঠকে মিলিত হবে বলে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন - আকাশপথে হানায় বিধ্বস্ত পাকিস্তান, ১ লক্ষ 'বিশেষ সেনা' পাঠাচ্ছে বন্ধু চিন

ওইদিন এই চার দেশের কৃষিমন্ত্রীরা ভিডিও কনফারেন্স-এর মাধ্যমে পঙ্গপালের আগ্রাসনের মোকাবিলার জন্য কী কৌশল গ্রহণ করা যায়, তাই নিয়ে আলোচনা করবেন। থাকবেন চার দেশেরই কৃষি বিজ্ঞানী ও পতঙ্গ বিশেষজ্ঞরাও। আবুধাবি থেকে একটি ভিডিও লিঙ্কের মাধ্যমে বৈঠকে অংশ নেবেন রাষ্ট্রসংঘের খাদ্য ও কৃষি সংস্থা বা এফএও-র প্রতিনিধিরাও।

আরও পড়ুন - করাচি-তে আকাশপথে ও কাদের হামলা, আতঙ্কের মধ্যেই মন্ত্রীর উদ্ভট রসিকতা

ভারতীয় বিজ্ঞানীদের মতে, ভারত-পাকিস্তান সীমান্তে সম্প্রতি নতুন করে যে পঙ্গপালের প্রাদুর্ভাব ঘটেছে তা সম্ভবত এই অঞ্চলজুড়ে এইবার বর্ষা স্বাভাবিকের থেকে বেশিদিন ধরে চলায় এবং ভারত মহাসাগরে ঘন ঘন ঘূর্ণিঝড় হওয়ায়। পৃথিবীর ইতিহাসে অন্যতম প্রাচীনতম কীট এই পঙ্গপাল। সেই সঙ্গে মানব সভ্যতার পক্ষে সবচেয়ে বিপজ্জনক-ও বটে। দ্রুত সংখ্যায় বাড়ে, তিন মাসের মধ্যেই সংখ্যা ২০ গুণ হতে পারে। একটি প্রাপ্তবয়স্ক পঙ্গপাল প্রতিদিন তার ওজনের সমান পরিমাণ খাবার খায়। মাত্র এক বর্গকিলোমিটার জায়গায় ৮ কোটি প্রাপ্তবয়স্ক পঙ্গপাল থাকতে পারে।