আগামী ২৩ ডিসেম্বর জামনগর পুলিশের অ্যাসিস্টেন্ট সুপারিন্টেনডেন্ট হিসাবে কাজে যোগ দিতে চলেছেন হাসান সাফিন। মাত্র ২২ বছর বয়সেই এই কৃতীত্ব অর্জন করতে চলেছেন এই গুজারতি তরুণ। পাশাপাশি হাসানই এখনও পর্যন্ত দেশের সবচেয়ে তরুণ আইপিএস অফিসার হওয়ার কর্তৃত্ব অর্জন করেছেন। 

গুজারাতের পালানপুরের কানোদর গ্রামের বাসিন্দা হাসানের ছোট থেকেই স্বপ্ন ছিল ইন্ডিয়ান সিভিল সার্ভিসে যোগ দেওয়ার। নিজের কাজের মাধ্যমেই দেশের সেবা করতে চান এই তরুণ। 

গতবছর ইউনিয়ন পাবলিক সার্ভিস কমিশনের পরীক্ষায় সারা ৫৭০ ব়্যাঙ্ক করেছিলেন সাফিন। আইএএস হওয়ার স্বপ্ন থাকলেও আপাতত আইপিএস অফিসার হিসাবেই নিজের কর্তব্য পালন করতে চান এই গুজরাতি যুবক। 

ছোট থেকেই অনেক লড়াই করতে হয়েছে এই যুবককে। হাসানের বাবা মুস্তাফা হাসান এবং মা নাসিমবানু দুজনেই সামান্য অলঙ্কার শিল্পী। হিরে ব্যসায়ীর অধীনে কাজ করে কোনও রকমে সংসার চলে তাঁদের। ছেলের পড়াশোনার জন্য স্থানীয় একটি খাবারের দোকানে রান্নার কাজও করতেন নাসিম। বাবা, মায়ের কষ্টের মর্যাদা দিতে পেরে এবার দেশ সেবায় নামতে চান দেশের সবচেয়ে তরুণ আপিএস হাসান সাফিন।