করোনার ভ্যাকসিন শুধু সুস্বাস্থ্যের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ নয়, গোটা বিশ্বের মঙ্গলের জন্যই গুরুত্বপূর্ণ। বিজ্ঞানী গবেষকদের এমনটাই বলে তাতিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শুধু তাই নয়, বললেন, ভাইরাসের বিরুদ্ধে সম্মিলিত লড়াইয়ে প্রতিবেশী দেশগুলি-সহ অন্যান্য দেশগুলিকে সহায়তা করা ভারতের কর্তব্য।

শনিবার ভ্যাকসিনের বিকাশ ও উত্পাদন প্রক্রিয়ার পর্যালোচনা করতে আহমেদাবাদের জাইডাস বায়োটেক পার্ক, হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেক এবং পুনের সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া পরিদর্শনে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। বিজ্ঞানের সঙ্গে তাঁর বিশেষ যোগ নেই। কিন্তু, মানুষকে উদ্বুদ্ধ করতে তিনি সিদ্ধহস্ত। মঙ্গলযানের ব্যর্থতার পর যেভাবে ইসরোর বিজ্ঞানীদের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন, সেইভাবেই ভ্যাকসিনে খোঁজে দিন-রাত কাজ করে চলা বিজ্ঞানী-গবেষকরা বললেন, প্রধানমন্ত্রী তাঁদের মনোবলকে বাড়িয়ে দিয়ে গেলেন।

আরও পড়ুন - ভ্যাকসিনের তদারকিতে তিন শহরের তিন গবেষণাগারে প্রধানমন্ত্রী, দেখুন ছবিতে ছবিতে

আরো পড়ুন - মোদীর সফরের পরই ফাঁস ভারতের ভ্যাকসিন পরিকল্পনা, দু'সপ্তাহের মধ্যেই আবেদন করবে সিরাম

আরও পড়ুন - মাটি খুঁড়লেই বের হচ্ছে 'হীরা' - শোরগোল গোটা নাগাল্যান্ডে, সরকার দিল তদন্তের নির্দেশ

শুধু তাই নয়, ভ্যাকসিন বিতরণ প্রক্রিয়াকে আরও ভাল করার জন্য প্রধানমন্ত্রী বিজ্ঞানীদের কাছে পরামর্শও চেয়েছেন, বলে জানা গিয়েছে। মহামারি নিয়ন্ত্রণের প্রক্রিয়া ভারত আরও কীভাবে উন্নত করতে পারে সেই সম্পর্কেও তাঁদের মুক্ত ও অকপট মতামত চান নরেন্দ্র মোদী। বিজ্ঞানীরাও তাঁর সামনে তুলে ধরেন কোভিড-১৯'এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ের জন্য কীভাবে তারা বিভিন্ন নতুন এবং পুরোনো ওষুধ ব্যবহার করছেন।

তিন কেন্দ্রে সফরের অভিজ্ঞতাই প্রধানমন্ত্রী শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। আহমেদাবাদের জাইডাস বায়োটেক পার্ক সফরের পর প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, দেশীয় প্রযুক্তিতে ডিএনএ ভিত্তিক ভ্যাকসিন তৈরি করছে জাইডাস ক্যাডিলা। তাদের এই প্রচেষ্টার জন্য সংস্থার প্রশংসা করেন এবং ভারত সরকারের পক্ষ থেকে সক্রিয় সহায়তার আশ্বাস দেন। হায়দরাবাদের ভারত বায়োটেক আইসিএমআরের সঙ্গে একসঙ্গে মিলে সুবিধা দেশীয় পদ্ধতিতে যে দ্রুততায় টিকা তৈরি করছে, সেই অগ্রগতির জন্য বিজ্ঞানীদের অভিনন্দন জানান নরেন্দ্র মোদী। পুনের সিরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া পরিদর্শন করে প্রধানমন্ত্রী টুইট করে বলেন, সিরাম কর্তাদের থেকে তিনি জেনে নিয়েছেন কীভাবে তারা ভ্যাকসিন উত্পাদন আরও বাড়াবার পরিকল্পনা করছে।