হায়দরাবাদের নাম বদলে ভাগ্যনগর! নিজ রাজ্যে একের পর এক স্থানের মুঘল নাম বদলানোর পর এবার তেলেঙ্গানার রাজধানীর নাম বদলের ডাক দিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। গ্রেটার হায়দরবাদ মিউনিসিপাল কর্পোরেশনের নির্বাচনের প্রচারে এদিন হায়দরাবাদে এসেছিলেন তিনি। প্রকাশ্য জনসভাতেই তিনি জনিয়ে দিলেন বিজেপি ক্ষমতায় এলেই ঘটবে হায়দরাবাদের নাম বদল।

শনিবার সকাল থেকেই তটস্থ ছিল হায়দরাবাদ-এর পুলিশ-প্রশাসন। শহরে প্রচারে আসছেন হিন্দুত্বের পোস্টার বয়। এখনও পর্যন্ত তাঁর বক্তৃতা ঘিরে কোনও অবাঞ্ছিত ঘটনা না ঘটলেও, স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতেই মেরুকরণের জাল বুনে দিয়ে গেলেন তিনি, এমনটাই বলছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। ২০১৮ সালে বিজেপি বিধায়ক রাজা সিং প্রথম দাবি করেছিলেন হায়দরাবাদের আসল নাম নাকি ছিল ভাগ্যনগর। এরপর গত কয়েকদিনে হায়দরাবাদের প্রচারে বিজেপি নেতারা বারবার টেনে এনেছেন ভাগ্যনগরের কথা। তেজস্বী সূর্য উপস্থিত জনতাকে 'ভাগ্যনগরের বাসিন্দা' বলে সম্বোধন করেছেন। এমনকী এআইমিম প্রধান আসাদউদ্দিন ওয়াইসি পর্যন্ত বলে দিয়েছেন আসন্ন নির্বাচন হল ভাগ্যনগর বনাম হায়দরাবাদের লড়াই।

আরও পড়ুন - ভ্যাকসিনের তদারকিতে তিন শহরের তিন গবেষণাগারে প্রধানমন্ত্রী, দেখুন ছবিতে ছবিতে

আরও পড়ুন - প্যাংগং হ্রদে মোতায়েন 'মার্কোস' বাহিনী, সেনা ও বায়ুসেনার পর কেন নৌসেনা এল লাদাখে

আরও পড়ুন - মাটি খুঁড়লেই বের হচ্ছে 'হীরা' - শোরগোল গোটা নাগাল্যান্ডে, সরকার দিল তদন্তের নির্দেশ

এদিন মঞ্চ থেকে সেই বিষয়টিকেই আরও একদাপ চড়িয়ে দিলেন যোগী। তিনি বলেন, 'বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর ফৈজাবাদের নাম বদলে যদি অযোধ্যা হতে পারে, ইলাহাবাদের নাম বদলে যদি প্রয়াগরাজ হতে পারে, তাহলে হায়দরাবাদের নাম ভাগ্যনগর কেন করা যাবে না?' শুধু তাই নয়, বিহারের এক নবনির্বাচিত এআইমিম বিধায়ক উর্দুতে শপথ গ্রহণের সময় 'হিন্দুস্তান' শব্দটির বদলে 'ভারত' বলেছিলেন। সেই প্রসঙ্গ-ও টেনে এনে যোগী আদিত্যনাথ বলেন 'তারা হিন্দুস্তানে বাস করবে, কিন্তু হিন্দুস্তানের নামে শপথ নেওয়ার কথা এলেই তারা দ্বিধায় পড়ে। এটাই এইআইমিম-এর আসল চেহারা।'

এদিনের বক্তৃতায় শুধু মিম নয়, যোগী আক্রমণ করেছে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল টিআরএস-কেও। কেসিআর-কে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, 'একটি পরিবার ও তাদের বন্ধুরাই হায়দারাবাদকে লুটে পুটে খাচ্ছে'। এছাড়া জম্মু ও কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিল করার প্রসঙ্গও তোলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, 'প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশনায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ হায়দরাবাদ ও তেলেঙ্গানার জনগণকে জম্মু ও কাশ্মীরে জমি কেনার সম্পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছেন'।