একলাফে দেশে ফের অনেকটাই বেড়ে গেল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৩ ঘণ্টায় সংক্রমণের শিকার হয়েছেন ৩,৩২০ জন। ফলে পরপর ৩ দিন আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজারের গণ্ডি ছাড়াল। এদিকে দেশে বর্তমানে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে  ৫৯,৬৬২ জন। যার মধ্যে সক্রিয় কেস রয়েছে ৩৯,৮৩৪টি।

 

গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্তের মতই বেড়েছ মৃতের সংখ্যাও। শুক্রবার করোনা সংক্রমণে মৃত্যু হয়েছে ৯৫ জনের। ফলে দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৯৮১। এখনও পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭,৮৪৭ জন। দেশে তৃতীয় পর্যায়ের লকডাউনেও পেরিয়ে গিয়েছে বেশ কয়েকটি দিন। কিন্তু করোনা সংক্রমণের গ্রাফ রয়েছে উর্দ্ধমুখী। অধিকাংশ মেট্রো শহরই রেড জোনের অন্তর্ভুক্ত। এই অবস্থায় ভাইরাস নিয়েই আমাদের বেঁচে থাকা শিখতে হবে বলে শুক্রবারই সতর্ক করে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লভ অগরওয়াল।

করোনার চিকিৎসায় এবার দেশে ট্রায়াল শুরু ফ্যাভিপিরাভির, অনুমোদন মিলল ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেলের

জুলাইয়েই প্রথমার্ধেই হবে সিবিএসই-র দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা, ফলে বেরোবে অগস্টের শেষে

মলদ্বীপ থেকে অবশেষে ঘরের পথে ভারতীয়রা, দেখুন 'সমুদ্র সেতু' অভিযানের সেই ঝলক

তবে দেশে ঠিক সময়ে লকডাউন শুরু হওয়ায় বিশ্বের তুলনায় ভারতে করোনা আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কম বলেই মনে করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা 'হু'। তবে লকডাউন উঠলেও যে এদেশে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বাড়বে সেই বিষয়ে সতর্ক করে দিয়েছেন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কোভিড-১৯  দলের  সদস্য ডেভিড নাবারো। এই পরিস্থিতিতে জুলাইয়ের শেষে ভারতে করোনার প্রকোপ সর্বোচ্চ থাকবে বলে সতর্ক করেছেন তিনি।

ধীরে ধীরে লকডাউন শিথিল করতে শুরু করেছে পৃথিবীর একাধিক দেশ। ভারতেও তৃতীয় দফার লকডাউনে কেন্দ্র বেশকিছু ক্ষেত্রে ছাড় দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে হু বারবার করে সতর্ক করছে, লকডাউন তুললেই বিপদ আরও ঘনিয়ে আসবে। দ্রুত ছড়াবে করোনা সংক্রমণ, যার ফলে লাফিয়ে বাড়বে মৃত ও আক্রান্তের সংখ্যা।