গত কয়েকদিন ধরেই উদ্বেগটা বাড়ছিল। বছরের শুরুতে একইসঙ্গে কোভিড-১৯ মহামারির দাপট কমা এবং ভ্যাকসিনের আগমনে অধিকাংশ ভারতবাসীই মনে করেছিলেন করোনা বোধহয় এবার বিদায় নিল। কিন্তু, গত ১৪ ফেব্রুয়ারির পর থেকেই ক্রমে ফের ঊর্ধ্বগামী হচ্ছিল কোভিড সংক্রমণের সংখ্যা। রবিবার, গত দুইমাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি নতুন কোভিড সংক্রমণের মামলার সংখ্যা নিবন্ধিত করল ভারত।

কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত ২৪ ঘন্টায় ভারতে ১৮,৭১১ জন নতুন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। সব মিলিয়ে ভারতের মোট করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে, ১,১২,১০,৭৯৯। চিকিৎসাধীন রোগীর সংখ্যা ১,৮৪,৫২৩। আর গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১০০ জনের মৃত্যু হওয়ায় ভারতে কোভিডে মোট মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১,৫৭,৭৫৬-য়।  

এই নিয়ে একটানা দ্বিতীয় দিন মহারাষ্ট্র, ১০,০০০-এরও বেশি নতুন কোভিড-১৯ সংক্রম নথিভুক্ত করা হয়েছে। শুক্রবারই মহারাষ্ট্রের দৈনিক নতুন সংক্রমণের সংখ্যা ১০,০০০ ছাপিয়ে গিয়েছিল, এদিন সেই রাজ্যে ১০,১৮৭ জন নতুন করোনা রোগীর সন্ধান মিলেছে। পাঁচ মাস আগে থেকে ক্রমে নতুন সংক্রমণের সংখ্যা কমছিল। কিন্তু, গত এক পক্ষ ধরে আবার নতুন করে বাড়ছে সংক্রমণের দাপট।

কেরল, পঞ্জাব, হরিয়ানা, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, গুজরাত, মধ্য প্রদেশ, দিল্লি, রাজস্থান এবং আমাদের  রাজ্য পশ্চিমবঙ্গেও এদিন সংক্রমণের সংখ্যা বাড়তে দেখা গিয়েছে। প্রতিটি রাজ্যেই জানুয়ারি মাসের থেকে বেড়েছে সংক্রমণের সংখ্যা। রাজস্থানে ইতিমধ্যেই প্রতিটি জেলার প্রবেশপথে চেকপোস্ট বসানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ভোটের বাংলায় সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছেন ভাইরাস বিশেষজ্ঞরা।