অবশেষে অযোধ্যায় রাম মন্দির নির্মাণের সব বাধা দূর হয়েছে। আগামী ৫ আগস্ট ভূমি পুজোর দিনও ধার্য হয়েছে। যেখানে স্বয়ং হাজির থাকবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফলে অনুষ্ঠান ঘিরে প্রস্তুতি এখন তুঙ্গে। এরমধ্যেই আশঙ্কার খবর শোনালেন গোয়েন্দারা। ভূমি পুজোর দিনই অযোধ্যায় জঙ্গি হামলার ছক কষছে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই।

ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা 'র' যে রিপোর্ট দিয়েছে তাতে বলা হয়েছে ওই জঙ্গি হামলার জন্য আফগানিস্থানে লস্কর ও জইশ জঙ্গিদের ট্রেনিং দিয়েছে আইএসআই। অযোধ্যায় হামলা করার জন্য ৩-৫টি জঙ্গি দল পাঠানো হতে পারে। এছাড়াও হামলা হতে পারে দিল্লি ও কাশ্মীরে।

আরও পড়ুন: রামমন্দির বানাতে দেবেন সোনার ইট, সম্প্রীতির বার্তা এবার স্বয়ং বাবরের উত্তরাধিকারীর

কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলি সূত্রে জানা গিয়েছে, ৫ আগস্ট কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের জন্য পাকিস্তানের কালা দিবস পালনের সিদ্ধান্ত আগেই নিয়েছিল ইমরানের সরকার। এর মধ্যেই স্থির হয় যে ওইদিনই অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো হবে। এই খবর শোনার পরেই নড়েচড়ে বসে পাকিস্তানের গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই। তারপর থেকেই আফগানিস্তান ও পাকিস্তান সীমান্তে থাকা জঙ্গি ঘাঁটিগুলিতে লস্কর ও জইশ জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু করে। মূলত ছোট ছোট দল তৈরি আত্মঘাতী হামলার পাশাপাশি ভিড় এলাকায় আইইডি বিস্ফোরণেরও ছক রয়েছে পাক গুপ্তচর সংস্থার। এর জন্য জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার পর সীমান্ত দিয়ে তাদের ভারতে অনুপ্রবেশ করানোর ছক কষছে আইএসআই।

এদিকে অগস্টে রয়েছে ভারতের স্বাধীনতা দিবসও। তাই শুধু অযোধ্যা নয় দেশের একাধিক স্থানেও হামলার ছক কষা হচ্ছে বলে সতর্ক করছেন গোয়েন্দারা। সোমবার গোয়েন্দাদের কাছ থেকে এই সংক্রান্ত রিপোর্ট পাওয়ার পরেই স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ এবং জম্মু ও কাশ্মীরের পুলিশকে সতর্ক করা হয়েছে। কারণ দিল্লি ও কাশ্মীরেও হামলা হতে পারে বলে গোয়েন্দা রিপোর্টে সতর্ক করা করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন: যোগ দিতে হবে ভূমি পুজোয়, ৮০০ কিলোমিটার হেঁটে অযোধ্যায় যাচ্ছেন রামভক্ত ফৈয়াজ

এর আগে ২০০৫ সালে পাকিস্তানের ৫ জন জঙ্গিকে অযোধ্যায় সংলগ্ন এলাকায় খতম করেছিল নিরাপত্তারক্ষীরা। রাম মন্দির এলাকায় ওই জঙ্গিদের বড়সড় হামলা চালানোর ছক ছিল বলে জানা যায়। গত বছরও হামলার ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে প্রয়াগরাজের আদালতে ৪ জনকে যাবজ্জীবনের সাজা শোনানো হয়। এবার গোয়েন্দাদের সতর্কবার্তার পর রাম মন্দির চত্বরে নিরাপত্তা আরও বাড়ানো হয়েছে। রাম লালার অস্থায়ী মন্দিরে এক ব্যাটেলিয়ান সিআরপিএফ অতিরিক্ত মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে আগামী ৫ অগাস্ট অযোধ্যায় রাম মন্দিরের ভূমি পুজো। ওই দিন অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন কমপক্ষে ২০০ জন  ভিভিআইপি। খোদ প্রধানমন্ত্রী যোগ দেবেন ভূমি পুজোর অনুষ্ঠানে। থাকবেন অমিত শাহ, রাজনাথ সিং এর মত হাইপ্রফাইল মন্ত্রীরা ছাড়াও একাধিক রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। সেই কারণে গোয়েন্দাদের এই রিপোর্টকে একেবারেই হাল্কা ভাবে নিচ্ছে না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। ইতিমধ্যে রাজধানী দিল্লি ও অযোধ্যায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।