লকডাউন চলছে গোটা দেশে। প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে যাওয়ার ছাড়পত্র নেই। প্রশাসনের তরফে বারবার বাড়িতে থাকার অনুরোধ করা হচ্ছে। সময় কাটাতে নিজের স্ত্রীর সঙ্গে তাই লুডো খেলায় মেতেছিলেন ভদোদরার এক ব্যক্তি। তাও আবার অনলাইন লুডো। কিন্তু সেই লুডো খেলায় জেতাই কাল হল স্ত্রীর। নিজের ধরমপত্নীর কাছে অনলাইন লুডোতে একাধিকবার হেরে মেজাজ হারালেন স্বামী। বেধড়ক মারতে শুরু করলেন স্ত্রীকে। পিটিয়ে একেবারে নিজের বউয়ের মেরুদণ্ডই ভেঙে দিলেন স্বামী।

স্বামীর হাতে মার খেয়ে আপাতত ভদোদরার একটি হাসপাতালে ভর্তি স্ত্রী। ২৪ বছরের ওই তরুমীর মেরুদণ্ডে একাধিক আঘাত লেগেছে বলে জানা যাচ্ছে। 

আরও পড়ুন: এবার তবলিগিরা দান করছেন প্লাজমা, দিল্লিতে সেরে উঠলেন ভেন্টিলেশনে যাওয়া রোগীও

মহিলাদের উপর নিগ্রহ বন্ধ করতে কয়েকবছর আগে ১৮১ অভয়ম হেল্পলাইন খোলে গুজরাত সরকার। ২৪ বছরের তরুণীর উপর অনলাইন লুডোকে কেন্দ্র করে ঘটে যাওয়া গার্হস্থ্য হিংসার ঘটনা ইতিমধ্যে সেখানে জানানো হয়েছে। জানা গিয়েছে পরিবারকে আর্থিক সাহায্য করতে ভেমালি এলাকায় টিউশন পড়াতেন ওই মহিলা।

সূত্রের খবর,  লকডাউনের সময় স্বামী যাতে বাড়ি থেকে না বের হন তারজন্য লুডো খেলার প্রস্তাব দিয়েছিলেন স্ত্রী। কিন্তু অনলাইন লুডোর শুরুতেই তিনৃচারবার স্বামীকে পরাজিত করেন তিনি। এনিয়েই দুজনের মধ্যে বিবাদ শুরু হয়। আর তারপরেই স্ত্রীর গায়ে সোজা হাত তোলেন স্বামী। মারের ফলে এই যুবতীর মেরুদণ্ডের মাঝে একটি ফাঁক তৈরি হয়েছে । জানা যাচ্ছে,  হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাওয়ার পর তিনি তাঁর মা-বাবার সঙ্গেই থাকবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

আরও পড়ুন: যখন-তখন শীতের অনুভূতি থেকে মাথাব্যথা, জেনে নিন করোনা আক্রান্তের আরও নতুন কিছু উপসর্গ

মহিলার স্বামী একটি বেসরকারি ইলেকট্রনিক্স সংস্থায় কাজ করেন। বিশাল অঙ্কের গৃহঋণ শোধ করতে হওয়ায় স্বামীকে আর্থিক সাহায্য করতে টিউশন পড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন ওই তরুণী। পাশাপাশি বিউটিশিয়ান কোর্সও করেন তিনি। তবে স্বামী মারধর করলেও পুলিশে অভিযোগ দায়ের করেননি তার স্ত্রী। সেকারণে অভিযুক্ত স্বামীকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। জানা গেছে, নিজের কৃতকর্মের জন্য স্ত্রীর কাছেও ক্ষমাও চেয়েছেন ওই ব্যক্তি। ওই তরুণীও কিছুদিন মা-বাবার সঙ্গে কাটিয়ে ফের স্বামীর কাছে ফেরত যাবেন বলে খবর।