মারণ করোনা ভাইরাসকে জয় করে নিয়েছিলেন তিনি। দিন কয়েক পরেই হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়ার কথা ছিল তাঁকে। তবে এত কিছুর পরেও হল না শেষরক্ষা। জয়পুরের এক বেসরকারি হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হল ৬৯ বছরের ইতালিয় পর্যটকরে। হাসপাতাল সূত্রে জানা যাচ্ছে, বৃহস্পতিবার রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হন তিনি। 

আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মাঝে মাস্ক পরে বিয়ের পিঁড়িতে বর-কনে, রিটার্ন গিফটে দিলেন স্যানিটাইজার

চলতি মাসের শুরুতেই রাজস্থান ঘুরতে ভারতে এসেছিলেন ৬৯ বছরের ওই ইতালিয় পর্যটক ও তাঁর স্ত্রী। জয়পুরে মেডিক্যাল টেস্টের পর তাঁদের শরীরে করোনার ভাইরাসের অস্তিত্ব পাওয়া যায়। তারপর থেকেই সোয়াই মানসিং হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন দুজনে। সম্প্রতি ওই দম্পতি করোনামুক্ত হয়েছেন বলে জানান চিকিৎসকার। সোয়াইন ফ্লু, ম্যালেরিয়া ও এইডসের ওষুধ দিয়ে তাঁদের চিকিৎসা করে ওই দম্পতি ও রাজস্থানের আরও এক বৃদ্ধকে সুস্থ করে তোলেন চিকিৎসকরা। বৃহস্পতিবার সকালে ওই পর্যটকের ইচ্ছেতেই তাঁকে  এক বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। সেখানেই মারাত্মক ভাবে হৃদরোগে আক্রান্ত হন ওই ইতালিয় পর্যটক। তবে করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত জটিলতার কারণেই এই মৃত্যু কিনা সেই বিষয়টি এখনও স্পষ্ট জানাননি চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন: করোনা যুদ্ধ জয় করে নজির গড়লেন ১০৩ বছরের বৃদ্ধা, পিছিয়ে নেই এদেশের দুবাই ফেরত বৃদ্ধও

১৬জন পর্যটকের একটি দলের সঙ্গে ওই ইতালিয় দম্পতি ভারতে ঘুরতে আসেন। এই পর্যটক দলের সকলেই করোনায় আক্রান্ত হন। এদের মধ্যে ১৪ জনের চিকিৎসা দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে চললেও প্রবীণ ইতালিয় দম্পতিকে রাজস্থানেই রাখা হয়েছিল।

এদিকে বৃহস্পতিবার রাজস্থানে আরও এক দম্পতির শরীরে করোনা ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে। ফলে আক্রান্তের সংখ্যা রাজ্যটিতে বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯। এদিকে এখনও পর্যন্ত সারা দেশে ২০৬ জন করোনা আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া গিয়েছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রক। ইতালিয় পর্যটককে ছাড়া দেশে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৪। দিল্লি, কর্ণাটক, মহারাষ্ট্র ও পঞ্জাবে একজন করে করোনা আক্রান্তের মৃত্যু হয়েছে। মৃতদের সকলেরই বয়স ষটের উর্দ্ধে।