প্রায়  ২৪ টিরও বেশি বিদেশী দূত ও প্রবীন কূটনাকিরের একটি দল বুধবার জম্মু ও কাশ্মীরে পৌঁছেছে। দুদিনের সফরে তাঁরা ঘুরে দেখবেন ভূস্বর্গের বিস্তীর্ণ এলাকা। বর্তমানে জম্মু ও কাশ্মীর যে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরে এসেছে তা তুলে ধরার লক্ষ্যেই বিদেশীদের সফরের আয়োজন করা হয়েছে। অন্যদিকে বিদেশী কূটনীতিকদের সামনে ভূস্বর্গের উন্নয়নও তুলে ধরা লক্ষ্য রয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের।

রীতি মেনেই ফুল ছড়িয়ে বিদেশী কূটনীতিকদের আমন্ত্রণ জানান হয়েছিল।

 বিদেশী প্রতিনিধিদের এই দলে রয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত উহো আস্তুটো ও ফরাসী রাষ্ট্রদূত এমানুয়েল নেলল সহ প্রায় ১০টি ইউরোপীয় দেশের রাষ্ট্রদূত। প্রতিনিধিদের মধ্যে রয়েছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতও। এছাড়াও জম্মু ও কাশ্মীর সফর করছেন আফ্রিকা, মধ্য আমেরিকার প্রতিনিধিরা। বিদেশী প্রতিনিধিদে সফর ঘিরে রয়েছে কড়া নিরাপত্তা। 

ইতিমধ্যেই বিদেশী প্রতিনিধিদের দলটি শ্রীনগরের উপকণ্টে বদগাম জেলায় সফর করেছে। সেখানে তারা কথা বসেছে স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে। বিকেরে কূটনাতিকদের দলি ডল লেকের তীরে শেই ই কাশ্মীর আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিভিন্ন দল ও রাজনৈতিক নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলবে। সাংবাদিক বৈঠকও করবে বিদেশী প্রতিনিধি দলটি। বিদেশী কূটনীতিকদের সফরকে কেন্দ্র করে গোটা ভূস্বর্গেই কঠোর নিরাপত্তা জারি করা হয়েছে। আগামিকালও বিদেশি কূটনীতিকদের দলটি বেশ কয়েকটি জায়গায় ভ্রমণ করবেন। কালও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলবেন তাঁরা। ঘিরে দেখবেন কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক কর্মসূচি। 

সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ ও জম্মু ও কাশ্মীরকে ভেঙে দুটি পৃথক কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলে পরিণত করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। তারপর এথেকেই প্রায় নজরবন্দি রয়েছে গোটা ভূস্বর্গ। বিস্তীর্ণ এলাকায় জারি করা হয়েছিল ১৪৪ ধারা। দীর্ঘ দিন ধরেই বন্ধ ছিল ইন্টারনেটের ৪জি পরিষেবা। সদ্য়োই সেই পরিষেবা চালু করা হয়েছ। বর্তমানে কিছুটা হলেও শিথিল করা হয়েছিল নিরাপত্তা ব্যবস্থা। একই সঙ্গে ভূস্বর্গে গণতন্ত্র অক্ষুন্ন রয়েছে, যার প্রমাণ দিয়েছে স্থানীয় জেলা ও গ্রামপঞ্চায়েত নির্বাচন। জন্মু ও কাশ্মীর নিয়ে বিশ্বের কাছে ভারতের ভাবমূর্তি আরও স্বচ্ছ করতেই কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এই সফরের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলেও সূত্রের খবর।