জম্মু ও কাশ্মীরের বিজেপি নেতা শেখ ওয়াসিম বারির হত্যার ঘটনা রহস্য ক্রমশই ঘনীভূত হচ্ছে। কারণ উপত্যকার এই বিজেপি নেতাকে রীতিমত নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যবস্থা করেছিল প্রশাসন। নিয়োগ করা হয়েছিল আট থেকে ১০ জন ব্যক্তিগত নিরাপত্তা রক্ষী।  কিন্তু তা সত্ত্বেও সন্ত্রাসবাদীদের গুলিতে ঝাঁঝরা হয়ে গিয়েছিল ওয়াসিম বারির দেহ। স্থানীয় পুলিশ সূত্রের খবর যখন তাঁর ও তাঁর পরিবারের সদস্যদের ওপর হাসমাল চালান হয়েছিল তখন কোনও নিরাপত্তা রক্ষীরই দেখা পাওয়া যায়নি। 

বুধবার রাত ৯টা নাগাদ ওয়াসিম বারি, তাঁর বাবা ও ভাইয়ের ওপর হামলা চালায় একদল সন্ত্রাসবাদী। প্রত্যেকেরও মাথা লক্ষ্য করে গুলি করা হয় বলে অভিযোগ। ওয়াসিম বারি ছিলেন বান্দিপোরার বিজেপির জোলা সভাপতি। একাধিকবার তাঁকে হুমকি দেওয়ার পরই প্রশাসনের তরফ থেকে নিরাপত্তারক্ষীর ব্যবস্থা করা হয়। কিন্তু গতকাল ঘটনার সময় কোনও নিরাপত্তারক্ষীকেই পাওয়া যায়নি। তাই ১০ রক্ষীর বিরুদ্ধেই কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগ ওঠে। বৃহস্পতিবার জম্মু ও কাশ্মীর পুলিশের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে প্রত্যেক নিরাপত্তা রক্ষীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। 

ইনফ্লুয়েঞ্জাকেও ছাড়িয়ে গেল করোনা, বিশ্বে আক্রান্ত ১ কোটি ২১ লক্ষেরও বেশি মানুষ ...

করোনা আর লকডাউনের সময় কেমন আছে তাঁর লোকসভা কেন্দ্র বারাণসী, বৃহস্পতিবার খবর নেবেন প্রধানমন্ত্রী ...

এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন জম্মু কাশ্মীরের লেফটেন্যান্ট গভর্নর জিসি মুর্মু। তিনি বলেছেন দোষীদের কড়া শাস্তি দেওয়া হবে। একটি দোকানের সামনে  নিরস্ত্র অবস্থায় বসেছিলেন ওয়াসিম বারি ও তাঁর পরিবারের সদস্যরা। সেই সময় তাঁদের ওপর হামলা চালান হয়। এই ঘটনাকে কাপুরুষোচিত বলেও বর্ণনা করেছেন তিনি। 

রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশন নিয়ে তদন্ত মানতে পারছেন না রাহুল, কড়া ভাষায় প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা ...

উপত্যকার বিজেপি নেতা খুনের বিষয়ে ইতিমধ্যেই সরব হয়েছেন বিজেপি নেতা রাম মাধব।  তিনি বলেছেন ওয়াসির বারির নিরাপত্তার জন্য জম্মু কাশ্মীর পুলিশের ৮ জন কমান্ডো মোতায়েন ছিল। কিন্তু তারপরেও কেন এই ঘটনা ঘটল তা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। নিরাপত্তার গাফিলতির অভিযোগের পাশাপাশি দোষীদের শাস্তি দেওয়ার দাবিও  জানিয়েছেন তিনি। উপত্যকার বিজেপি নেতা খুনের ঘটনার তদন্তের অগ্রগতি নিয়ে খোঁজ খবর নিচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।