বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের বারাণসীর কয়েক স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। খবর নেবেন এই সংকটকালে কেমন আছেন তাঁর কেন্দ্রের বাসিন্দারা। লকডাউনের এই সময় খাবার সরবরাহ ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী স্থানীয় বাসিন্দাদের কাছে পৌঁছে দিতে কোনও সমস্যা হচ্ছে কীনা তাও জানবেন নরেন্দ্র মোদী। বুধবারই একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। 

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী উত্তর প্রদেশের বারাণসী লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ। গত দুবার এই এলাকা থেকেই ভোটে জিতে লোকসভায় গেছেন তিনি। 

লকডাউনের এই সময় বারাণসীর বাসিন্দা ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলিরে কাছে খাবার ও প্রয়োজনীয় সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার দায়িত্বে রয়েছে স্থানীয় জেলা প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে জানান হয়েছে, সময়মত প্রয়োজনীয় সামগ্রী পেয়েছেন বারাণসীর বাসিন্দারা। আগামিকাল ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেশ কয়েকটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যদের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী কথা বলবেন। জানতে চাইবেন তাঁদের প্রয়োজন। পাশাপাশি আগামী দিনে তাঁদের পরিকল্পনা নিয়েও কথা বলবেন নরেন্দ্র মোদী। 

সাজা পুনর্বিবেচনার আবেদন করতে অস্বীকার কুলভূষণ যাদবের, দাবি করেছে পাকিস্তান ...

রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশন নিয়ে তদন্ত মানতে পারছেন না রাহুল, কড়া ভাষায় প্রধানমন্ত্রীকে নিশানা ...
স্থানীয় প্রশাসনের তরফে জানান হয়েছে লকডাউনের এই সময়কালে প্রায় ২০ লক্ষ খাবারের প্যাকেট সরবরাহ করেছে। ২লক্ষ শুকনো রেশন তুলে দেওয়া হয়েছে স্থানীয়দের হাতে। খাবারের পাশাপাশি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলি মাস্ক, স্যানিটাইজার ও ওষুধও বিলি করেছে স্থানীয় বাসিন্দাদের কথা। জেলা প্রশাসনের কথা করোনা যোদ্ধা হিসেবেই তাঁরা পরিচিত। জেলা প্রশাসনের তরফ থেকে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে এই প্রতিষ্ঠানগুলি শিক্ষা, সামাজিক, ধর্মীয়, স্বাস্থ্যসহ একাধিক এলাকায় কাজ করে থাকে। 

লকডাউনের ভারতে বেড়েছে নারী নির্যাতনের ঘটনা, কী বলছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী স্মৃতি ইরানি ...