অজিত পাওয়ারের জন্য দলের দরজা খোলা আছে। তিনি চাইলেই আসতে পারেন বলে সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে এক সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় মন্তব্য করলেন ন্যাশনাল কংগ্রেস পার্টির নেতা জয়ন্ত পাতিল। তিনি আশা প্রকাশ করেছেন, অজিত পাওয়ার আবার দলে ফিরে আসবে।  তিনি জানিয়েছেন, যে পাঁচ জন এনসিপির বিধায়ক বিজেপিকে সমর্থন করে শপথ গ্রহণ করেছেন, তাঁদেরও দলে ফিরিয়ে নেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। 

সর্বভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমে জয়ন্ত পাতিল জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা আদৌ প্রমাণ করতে পারবে না। যার জেরে সরকার ভেঙে পড়বে। জয়ন্ত পাতিল বলেছেন, দেবেন্দ্র ফড়নবীশের নেতৃত্বাধীন সরকার ফ্লোর টেস্টের সময় ভেঙে পড়বে। আমাদের সমস্ত বিধায়ক আমাদের সঙ্গে রয়েছেন। পাঁচ বিধায়ক এখনও আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি, তবে তাঁদেরকেও আমরা দলে স্বাগত জানাই। তবে অজিত পাওয়ার হঠাৎ করে কেন দেবেন্দ্র ফড়নবীশকে সমর্থন করতে গেলেন, সেই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি।  

সাক্ষাৎকারে জয়ন্ত পাতিল জানিয়েছেন, এনসিপির প্রধান শরদ পাওয়ার অজিত পাওয়ারের  সঙ্গে কথা বলতে দুই তিনজকে পাঠিয়েছেন। তাঁরা অজিত পাওয়ারের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। তবে আলোচনায় কী উঠে এসেছে, সেই বিষয়ে এখনও কিছু জানানো হবে না বলে পাতিল মন্তব্য করেছেন। পাতিল আশা প্রকাশ করেছেন, খুব শীঘ্রই দেবেন্দ্র ফড়নবীশের সরকার পড়ে যাবে। শিবসেনা ও এনসিপি সরকার গঠন করবেন। উদ্ধব ঠাকরে সেই সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হবেন। এটা এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। জানা গিয়েছে, এনসিপির বিধায়করা অভিযোগ করেছেন, তাঁদেরকে এক প্রকার অপহরণ করে রাজভবনে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।  এনসিপির কয়েকজন বিধায়ক ইতিমধ্যে  দলের সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন। শনিবার দেবেন্দ্র ফড়নবীশের শপথ নেওয়ার পর  এনসিপি ও  শিবসেনা একটি সাংবাদিক সম্মেলন করেন। সেখানে উদ্ধব ঠাকরে জানান, মহারাষ্ট্রের গণতন্ত্রের ওপর বিজেপি সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছে।