রাজ্যের করোনাভাইরাসের সংকট কাটি উঠেই বিয়ে দিলেন নিজের মেয়ের। তবে সেখানেও রীতিমত গুরুত্ব দিলেন করোনা স্বাস্থ্য বিধির ওপর। গত ৩০ জানুয়ারি থেকে করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছে কেরল। দেশে বিদেশে যথেষ্ট আলোচনা হয়েছে কেরল মডেল নিয়েই। পিনারাইয় বিজয়ন ও রাজ্যে স্বাস্থ্য মন্ত্রী শৈলজার প্রতিটি পদক্ষেপ প্রশংসিত হয়েছে বিরোধী রাজনৈতিক দলের কাছেও। লকডাউন শিথিল করে ধীরে ধীরে স্বাভাবিকের পথে এগিয়ে যাচ্ছে কেরল। তবে এখনও লড়াইয়ে ইতিটানেননি বিজয়ন। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখে দেওয়াকে এখনও যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছেন তিনি। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে মেয়ের বিয়ে দিলেন তিনি। তবে সেখানেও তীক্ষ্ণ নজর রেখেছিলেন করোনা স্বাস্থ্য বিধির ওপর। পরিবারের নিকট সদস্যদের উপস্থিতিতে কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন তাঁর মেয়ে টি  ভিনার বিয়ে দিলেন সোমবার। পাত্র ডিওয়াইএফআই -এর জাতীয় সম্পাদক পিএ মহম্মদ রিয়াস। 

করোনা সংকটের মধ্যেই মুম্বইয়ে শুরু লোকাল ট্রেন পরিষেবা, এই রাজ্যে কবে থেকে শুরু হবে ...

মন কি বাত অনুষ্ঠানে দেশের 'মনের কথা' শুনবেন, জেনেনিন 'করোনা লড়াইয়ে' পরামর্শ পাঠানোর ঠিকানা ...

করোনাভাইরাস এক ছাদের তলায় আনল অমিত শাহ আর কেজরিওয়ালকে, কাল সর্বদলীয় বৈঠক ...

কেলের মুখ্যমন্ত্রীর নিবাশ ক্লিফ হাউস। সেখানেই বসেছিলেন বিয়ের সাদামাটা আসর। হলুদ শাড়ি আর গয়নায় সেজে উঠেছিলেন টি ভিনা। আর পাত্রের পরণে ছিল কেরলের পোষাক। পরিবারের সদস্য ছাড়াও বাইরের আতিথি বলতে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের শিল্পমন্ত্রী, ডিওয়াইএফআই -এর এক নেতা। সব মিলিয়ে মাত্র ৫০ জন অতিথি ছিলেন এই বিয়েতে।  খুব সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানেরই আয়োজন করা হয়েছিল। 

ভিনা রবি পিল্লাইয়ের আরটি টেকনোসফটের ম্যানেজিং ডিরেক্টর। আর রিয়াস রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। রিয়াস প্রাক্তন আইপিএস অফিসারের সন্তান। বাম ছাত্র সংগঠনের সদস্য হিসেবেই রাজনৈতি জীবন শুরু করেছিলেন। বর্তমানে তিনি ডিওয়াইএফআই নেতা। সিপিএম স্টেট কমিটির সদস্যও।  তবে ২০০৯ সালে সাধারণ নির্বাচনে কোডিকোড় আসন থেকে হেরে গিয়েছিলেন। এদিন সন্ধ্যাবেলায় নবদম্পতি তাঁদের বাড়ি কোজখউত্তমে চলে যাবে। ভিনা ও রিয়াস দুজনেরই এটি দ্বিতীয় বিয়ে।