সোনা পাচার নিয়ে বিজেপি এবার কোমর বেঁধে নামছে কেরলের বাম সরকারে বিরুদ্ধে। রবিবার  বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জেপি নাড্ডা সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত তোপ দাগেন পিনারাই বিজয়ন সরকারের বিরুদ্ধে। তিনি পরপর দুটো বার্তা দেন। দুটিতে বাম সরকারের বিরুদ্ধে উষ্মার প্রকাশ করেছেন। 

প্রথম বার্তায় জেপি নাড্ডা বলেছেন, সোনার রঙ সর্বত্রই হলুদ। কিন্তু কেরলে এটির রঙ লাল। আর নাড্ডার এই কথাতেই পরিষ্কার হয়ে গেছে যে বিজেপি এবার বাম সরকারকে কোনঠাসা করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। জেপি নাড্ডার প্রশ্ন, আইটি অফিসার ও মুখ্যমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সচিবের মধ্যে কী সম্পর্ক রয়েছে। 

'অপারেশন কমল' নিয়ে তোলপাড় রাজস্থানের রাজনীতি, জ্যোতিরাদিত্যর পর কি এবার দল ছাড়ছেন শচীন পাইলট ...

প্লাজমা থেরাপিতে ভরসা রাখতে চান গবেষকরা, করোনা সংক্রমণ রুখতে কার্যকর বলেও দাবি ...
দ্বিতীয় বার্তায় জেপি নাড্ডা সরাসরি নিশানা করেন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নকে। তিনি বলেন, কেরলের মুখ্যমন্ত্রীর কার্যালয়ের ভূমিকা লক্ষ্য করা হয়েছে। যে মুখ্যমন্ত্রী তদন্তের বিষয় প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখছেন সেই তিনি আবার পাচারকারীদের লালন করছেন বলেও কটাক্ষ করেন নাড্ডা। তাঁর প্রশ্ন এই পাচার ক্রিয়ার সঙ্গে কী জড়িয়ে রয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর পদও। 


গত সপ্তাহ থেকেই ৩০ কোজি সোনাপাচারের ঘটনা সামনে আসে। তারপরই উত্তাল হয়ে ওঠে কেরলের রাজনীতি। স্বপ্ন সুরেশ নামে এক পদস্থ অধিকারিক এই ঘটনায় জড়িত বলে অভিযোগ ওঠে। তিনি মুখ্যমন্ত্রীর তথ্য প্রযুক্তি দফতর দেখভার করেন যে সংস্থা তার মাথায় রয়েছেন। তাই কিছুটা হলে বিপাকে পড়েছে পিনারাই বিজয়ন। যদিও কয়েক দিন আগেই কেলরের মুখ্যমন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে দ্রুত তদন্তের আর্জি জানিয়েছে চিঠি লিখেছিলেন। নিজের ভাবমূর্তি স্বচ্ছ রাখতে সরিয়ে দিয়েছিলেন কর্তব্যরত আধিকারিকদের। তবে একটি সূত্র বলছে এই ঘটনার তদন্তে মুখ্যমন্ত্রীর দফতরের আরও বেশ কয়েকজনের জড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা প্রবল।  যা নিয়ে কেরলের বাম সরকারের বিরুদ্ধে আসরে নেমেছে বিজেপি।