খালিস্তানি জঙ্গিদের সঙ্গে যোগ মিলল পাক গুপ্তচর সংস্থা আইএসআই-এর। সোমবার দিল্লি পুলিশের স্পেশাল সেল-এর সঙ্গে সংঘর্ষের পর দিল্লির শকরপুর এলাকা থেকে পাঁচ সন্দেহভাজন সন্ত্রাসবাদীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আর তাতেই এই বিস্ময়কর যোগাযোগ-এর বিষয়ে জানা গিয়েছে।

আরও পড়ুন - বাংলাদেশ কি চলে যাবে ইসলামি চরমপন্থীদের হাতে - ভয় ধরাচ্ছে হেফাজত-এ-ইসলাম, দেখুন ছবিতে ছবিতে

আরও পড়ুন - চেয়েছিলেন 'গুলি খাওয়ার অনুমতি', ১১ দিন পর মিলল নৌসেনার পাইলটের নিথর দেহ

আরও পড়ুন - ম্যাক্রঁ-র সঙ্গে হাত মেলালেন মোদী, ইসলামি বিশ্বে বিদ্বেষের মধ্যেই ভারত দিল আশ্বাস

প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে আটক ৫ জনের মধ্যে দু'জন পঞ্জাবের এবং বাকি তিনজন জম্মু ও কাশ্মীরের। তাদের সঙ্গে খালিস্তানি ও ইসলামি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে। দিল্লির পুলিশের স্পেশাল সেলের ডিসিপি প্রমোদ কুশওয়া জানিয়েছেন, পঞ্জাবের জঙ্গি সদস্যদের কাজ ছিল নির্দিষ্ট ব্যক্তিবর্গকে হত্যা করাষ আর কাশ্মীরী সদস্যদের কাজ ছিল মাদক বিক্রি করে সন্ত্রাসবাদে অর্থায়ন করা। তারা বস্তুত হিজবুল মুজাহিদিন-এর ওভার গ্রাউন্ড ওয়ার্কার্স। পাক অধিকৃত কাশ্মীরে তাদের সহযোগী রয়েছে।  ডিসিপি জানান, এই গ্রেফতারিতে প্রমাণ হয়ে গিয়েছে, আইএসআই খালিস্তান আন্দোলনকে কাশ্মীরের সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে যুক্ত করার চেষ্টা করছে।

দিল্লি পুলিশ আরও জানিয়েছে, এই অভিযানে তিনটি পিস্তল, ২ কেজি হেরোইন এবং নগদ এক লক্ষ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। তার ভিত্তিতে দিল্লি পুলিশের দাবি, গ্রেফতার হওয়া পাঁচজনের মধ্যে অন্তত দু'জন শৌর্য চক্র পুরস্কারপ্রাপ্ত বলবিন্দর সিং ভিখিউইন্দ হত্যায় জড়িত ছিল। পঞ্জাবের ত্রান তরণ-এ বাসভবনের কাছেই বলবিন্দর সিং-কে গুলি করে হত্যা করেছিল মোটরসাইকেল আরোহী হামলাকারীরা। পঞ্জাব পুলিশ জানিয়েছে, দিল্লি পুলিশের আটক করা অস্ত্রশস্ত্রই বলবিন্দর সিং-এর হত্যায় ব্যবহার করা হয়েছিল। তবে এই বিষয়ে নিশ্চিতভাবে বলার জন্য আরও তদন্তের প্রযোজন বলে জানিয়েছে পুলিশ।