জম্মু ও কাশ্মীরে  এখন আগের থেকে অনেকটাই স্বাভাবিক হয়েছে যোগাযোগ ব্যবস্থা। সূত্রের খবর, উপত্যকার অধিকাংশ এলাকায় ল্যান্ডলাইন টেলিফোন পরিষেবা ফের স্বাভাবিক করে দেওয়া হয়েছে। এমনকী শনিবার থেকে এখনও পর্যন্ত উপত্যকার কোথাও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়নি বলে জানা গিয়েছে। 

সার্বিকভাবে উপত্যকার পরিস্থিতি আগের থেকে অনেকটাই স্বাভাবিক হয়ে যাওয়ার কারণেই যোগাযোগ ব্যবস্থা পুনরায় চালু করা হচ্ছে। সূত্রের খবর শনিবার বিকেলে থেকেই জম্মু ও কাশ্মীরের শ্রীনগর-সহ বিস্তীর্ণ অঞ্চলে শনিবার সন্ধের পর থেকে টেলিফোনে যোগাযোগ ব্যবস্থা স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছে, সেইসঙ্গে একাধিক জায়গায়ে ফিক্স লাইন ফোন পরিষেবা চালু করা হয়েছে। 

মুর্খের রাজ্যে বাস করে আগুন নিয়ে খেলছে ভারত, কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতকে খোঁচা পাক রাষ্ট্রপতির

কর্তৃপক্ষের তরফে আরও বলা হয়েছে যে, ল্যান্ডলাইন যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও বেশকিছু এলাকায় দ্রুত পুনরুদ্ধারের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। যদিও গত ৫ অগাস্ট জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণার দিন থেকেই কাশ্মীরে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ রাখা হয়েছিল। 

বাহরিনে ২০০ বছরের পুরনো কৃষ্ণ মন্দির! সংস্কার প্রকল্প শুরু করলেন নরেন্দ্র মোদী

প্রসঙ্গত, শনিবার প্রশাসনের তরফে শ্রীনগর থেকেই ফেরত পাঠিয়ে দেওয়া হয় রাহুল গান্ধী সহ-একাধিক বিরোধী নেতা-কে। এদিন জম্মু ও কাশ্মীরে ঢুকতে না পেরে, সেখানকার পরিস্থিতি স্বাভাবিক নয়, বলে মন্তব্য করেছিলেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। 

পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধ, বালাকোট হামলার পরেই তৈরি ছিল ভারত

আজ জম্মু ও কাশ্মীরের রাজ্যপাল সত্য পাল মালিক, জানিয়েছেন, যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্ল্যাক আউটের ফলে যদি কারওর পক্ষে হানিকারক না হয়, তাহলে এর কোনও খারাপ দিক নেই। তিনি আরও বলেন যে, গত ১০ দিন ধরে জম্মু ও কাশ্মীরে কোনও হিংসার ঘটনা ঘটেনি। শুধু তাই নয়, উপত্যকায় নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যেরও কোনও অভাব নেই। ইদ উপলক্ষ্যে সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে ওষুধ-পত্র, মাংস, সবজি এবং ডিম পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। আগামী দশ-পনেরো দিনের মধ্যেই উপত্য়কা নিয়ে সাধারণ মানুষের মত বদলাবে বলেও দাবি করেন তিনি।