দেশে চলা দ্বিতীয় দফার লকডাউন শেষ হতে চলেছে আগামী ৩ মে। তারপর কেন্দ্র কী সিদ্ধান্ত নেয় সেদিকেই এখন তাকিয়ে দেশবাসী। তবে ভাল খবর, দেশ জুড়ে ক্রমেই কমছে করোনাভাইরাসের হটস্পট বা রেড জোনের সংখ্যা। সরকার জানাচ্ছে যে গত ১৫ দিনের মধ্যে প্রায় ২৩ শতাংশ কমেছে দেশের অতি সংক্রমিত এলাকাগুলো। 

করোনা সংক্রমণ মোকাবিলায় প্রশাসন নতুন কী সিদ্ধান্ত নেয়, এই সব জল্পনাক মাঝেই  দেশজোড়া ৭৩৩ টি জেলার রেড, অরেঞ্জ আর গ্রিন জোনের তালিকা প্রকাশ করল। তালিকা অনুসারে দেশে রয়েছে ১৩০টি রেড জোন। মনে করা হচ্ছে ৩ মে–এর পরেও সেখানে জারি থাকবে সতর্কতা। বাকি অরেঞ্জ ও গ্রিন জোনে একটু একটু করে কাজকর্ম শুরু হতে পারে বলেও আশা করছেন অনেকে।

সফল হল না প্লাজমা থেরাপির প্রয়োগ, বাণিজ্যনগরীতে মারাই গেলেন চিকিৎসারত করোনা রোগী

উহানের ভাইরোলজির ল্যাবেই করোনার উৎপত্তি, গোয়েন্দা রিপোর্টে রয়েছে প্রমাণ, দাবি ট্রাম্পের

জলন্ধরের পর এবার সাহারানপুর থেকে হিমালয় দর্শন, ৩০ বছর পর দেখা গেল ঝকঝকে গঙ্গোত্রী

কেন্দ্রের প্রকাশ করা তালিকা অনুযায়ী বাংলার ১০টি জেলা এখনও রয়েছে রেড জোনের তালিকায়। সেগুলি হল- কলকাতা, হাওড়া, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, উত্তর ২৪ পরগনা, পশ্চিম মেদিনীপুর, পূর্ব মেদিনীপুর, দার্জিলিং,  জলপাইগুড়ি, কালিম্পং ও মালদহ।

 

রাজ্যে অরেঞ্জ জোনের তালিকায় রয়েছে ৫টি জেলা। এগুলি হল- হুগলি, পশ্চিম বর্ধমান,নদিয়া, পূর্ব বর্ধমান ও মুর্শিদাবাদ।

আর কেন্দ্রের গ্রিন জোনের তালিকায় রয়েছে এরাজ্যের ৮টি জেলা। সেগুলি -  উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, বাঁকুড়া, বীরভূম কোচবিহার পুরুলিয়া, আলিপুরদুয়ার ও ঝাড়গ্রাম।