করোনাভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যেই বার বার ছোটো ছোটো ভূমিকম্পে কেঁপে উঠছে দিল্লি। শুক্রবারও ফের এক দফায় কেঁপে উঠল রাজধানী। এদিন বেলা ১১টা ২৮ মিনিটে কম্পন অনুভূত হয় দিল্লিতে। যদিও এই কম্পনের তীব্রতা ছিল মাত্র ২.২। কম্পন এতটাই হালকা ছিল যে অনেকেই সেটা অনুভবও করেননি। 

আরও পড়ুন: পঞ্চায়েত থেকে মিলল অনুমতি, গ্রামের মেলায় সামাজিক দূরত্বের বিধি না মেনে উপচে পড়ল ভিড়

দিল্লির পীতমপুরা এলাকায় এই কম্পন অনুভূত হয়। যার এপি সেন্টার ছিল রাজধানীর উত্তর-পশ্চিম দিকে ১৩ কিলোমিটার দূরে। 

আরও পড়ুন: এবার চিনকে ছাড়িয়ে যেতে চলল ভারত, আক্রান্তের সংখ্যা ৮২ হাজারের দোড়গোড়ায়

এই নিয়ে গত ১৫ দিনে চারবার কাঁপল দেশের রাজধানী। গত ১২ এপ্রিল দিল্লিতে প্রথম কম্পন অনুভূত হয়। সেদিন রিখটার স্কেলে কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.৫। এর পরের দিন আরও একবার কম্পন অনুভূত হয়। সেবার কম্পনের মাত্রা ২.৭। চলতি মাসের শুরুতে ফের একবার কেঁপে ওঠে দিল্লি। ৩ মে হওয়া সেই কম্পনের মাত্রা ছিল ৩.৪। যার এপি সেন্টার ছিল ওয়াজিপুর এলাকা। সব মিলিয়ে কম্পন-আতঙ্কে জর্জরিত দিল্লি।

আরও পড়ুন: শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন থেকে বিনামূল্যে খাদ্যশস্য, পরিযায়ীদের জন্য ঘোষণা অনেক, বাস্তব চিত্র বলছে অন্য কথা

ঘনঘন এই কম্পন, বড়ো কোনো ভূমিকম্পের পূর্বাভাস কি না সেই চর্চা শুরু হয়ে গিয়েছে দিল্লিবাসীর মধ্যে।তাঁদের মনে প্রশ্ন জাগছে, আচমকা কম্পনের বাড়বাড়ন্ত কেন শুরু হল দেশের রাজধানীতে।