শুক্রবারই মহারাষ্ট্রে সরকার গঠনের পথ পরিষ্কার হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। এদিন শিবসেনা, এনসিপি ও কংগ্রেস দলের শীর্ষ নেতৃত্ব মহারাষ্ট্রে নয়া জোট সরকার গঠনের জন্য সমস্ত বিষয় চূড়ান্ত করতে ফের একবার আলোচনায় বসছেন। এর মধ্যে শেষ মুহূর্তে বিজেপি শষিবসেনার বিধায়কদের ঘুস দিয়ে বা ভয় দেখিয়ে ভাঙানোর চেষ্টা করতে পারে বলে আশঙ্কা করচে শিবসেনা। বৃহস্পতিবার আগেভাগেই এই 'চোরাশিকারি'-দের চরম হুমকি দিয়ে রাখলেন এক শিবসেনা বিধায়ক।

গত ৩৫ বছর ধরে এক সঙ্গে জোটে ছিল বিজেপি ও শিবসেনা। কিন্তু সেই পুরোনো সঙ্গীদের প্রতি বিন্দুমাত্র শ্রদ্ধা দেখাননি শিবসেনা বিধায়ক আব্দুল সাত্তার। তিনি সাফ জানান, সরকার গঠনের বিষয়টি যখন চূড়ান্ত, তখন বিজেপি মরিয়া হয়ে উঠেছে তাদের বিধায়কদের অর্থের লোভ বা ভয় দেখিয়ে ভাঙিয়ে নিতে। সংবাদ সংস্থা এএনআই-এর ক্যামেরার সামনেই তিনি বলেন, এই ধরণের চোরা শিকারের চেষ্টা যারা করবে তাদের তিনি মাথা গুঁড়িয়ে দেবেন। পা-ও ভেঙে দেবেন।

তবে শিবসেনার পক্ষ থেকেই তাদের হাসপাতালে পৌঁছে দেওয়া হবে বলেও আশ্বাস দিয়েছেন আব্দুল সাত্তার। অ্যাম্বুল্যান্স তৈরিই রাখা থাকবে। চিকিৎসার সব খরচও শিবসেনার তরফ থেকেই মেটানো হবে বলে জানান তিনি।

কংগ্রেস ও শিবসেনা দুই দলের মধ্যে আদর্শগত অনেক তফাত রয়েছে। কিন্তু মূলত্ঃ মুখ্যমন্ত্রীর চেয়ারের ভাগাভাগি নিয়ে বিজেপির সঙ্গে শিবসেনার নির্বাচন পূর্ববর্তী জোট ভেঙে যাওয়ার পর এখন এই দুই শিবিরই এক জায়গায় এসে সরর গঠনের চেষ্টা চালাচ্ছে। রাজ্যে এখন জারি রয়েছে রাষ্ট্রপতি শাসন। তবে শুক্রবারের ত্রিদলীয় বৈঠকের পর সরকার গঠনের বিষয়টি অনেকটাই সাফ হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।