দেশজুড়ে চলছে লকডাাউন। আর তারমধ্য়েই মঙ্গলবার সকাল থেকে দিল্লি-গাজিয়াবাদ সীমান্তে দেখা গেল কয়েক কিলোমিটার লম্বা ট্রাফিক জ্যাম। কারণ মঙ্গলবার সকালে আচমকা দিল্লি-গাজিয়াবাদ সীমান্ত বন্ধের আদেশ জারি করা হয়েছে। সীমান্ত পার হওয়ার উপর হঠাৎ এই নিষেধাজ্ঞা জারি হওয়ায় জাতীয় সড়ক-৯ উপর গাজীপুর সীমান্ত চৌকিতে, বহু নিত্যযাত্রী আটকে পড়েছেন। তাদের গাড়ির লাইন কয়েক কিলোমিটার দূর পর্যন্ত গড়িয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

আচমকা এই নিষেধাজ্ঞার জারি হওয়ার কারণে অনেক যাত্রীই অত্যন্ত ক্ষুব্ধ। ওই এলাকার যে ভিডিও দেখা গিয়েছে, তাতে অনেককেই কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে তর্কে জড়িয়ে পড়তে দেখা গিয়েছে। সীমান্তের দুই পাশেই আপাতত সার সার গাড়ি, লড়ি ইত্যাদি যানবাহনের আটকে আছে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা আইএএনএস। এমনকী চলাচলের বৈধ পাস থাকা লোকদেরও পুলিশ লম্বা জিজ্ঞাসাবাদ করছে, অনেককে সীমান্ত পার হতে দিচ্ছে না বলেই খবর।

দিল্লি ট্র্যাফিক পুলিশ টুইট করে জানিয়েছে, উত্তরপ্রদেশ সীমান্তে পুলিশ যাত্রীদের কঠোরভাবে চেক করার কারণে গাজীপুর থেকে গাজিয়াবাদ যাওয়ার রাস্তায় ট্রাফিক চলাচল ধীর গতিতে হচ্ছে। বিকেল পর্যন্ত একেবারে শামুকের গতিতে গাড়ি চলছে বলে জানা গিয়েছে।

লকডাউনে বিহারে ব্যাঙ-পোড়া খাচ্ছে শিশুরা, ভাইরাল ভিডিও-র পিছনে লুকিয়ে কোন সত্যি

বাতকর্মের মাধ্যমে কি ছড়াতে পারে করোনাভাইরাস, তাহলে কি পশ্চাতদেশেও পরতে হবে মাস্ক

লকডাউনে বন্ধ স্নান, বাধ্য করছেন সঙ্গমে, স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিশে নালিশ স্ত্রীর

সম্প্রতি, দিল্লি থেকে গাজিয়াবাদে আসা ছয়জনের দেহে করোনাভাইরাস ধরা পড়ার পর, সোমবারই জেলাশাসক অজয়শঙ্কর পাণ্ডে গাজিয়াবাদ সীমান্ত সিল করার আদেশ জারি করেছিলেন। তারপর মঙ্গলবার থেকে জেলা প্রশাসন গাজিয়াবাদ ও দিল্লির মধ্যে লোক চলাচল নিষিদ্ধ করে। কিন্তু, এই রাস্তায় নিয়মিত যাতায়াত করেন, এমন অনেকেই এই নির্দেশ জানতেন না। তাতেই সমস্যা তৈরি হয়েছে। তবে, বৈধ পাস সহ এবং প্রয়োজনীয় এবং জরুরি পরিষেবাগুলিতে নিযুক্ত ব্যক্তিদের দুই শহরের মধ্যে চলাচল করার অনুমতি দেওয়া হবে।