মারণ করোনা ভাইরাস চিনের গণ্ডী পেরিয়ে ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের ১২০টিরও বেশি দেশে। যার মধ্যে রয়েছে ভারত। প্রতিদিনিই  লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। ভারত ঘনবসতিপূর্ণ দেশ হওয়ায় করোনা মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে বলেই আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। সেইকারণে দেশের কয়েকটি বড় স্টেডিয়ামকে জরুরী ভিত্তিতে হাসপাতালে পরিণত করার কথা ভাবা উচিত বলেই মনে করছেন তাঁরা।

নভেল করোনা ভাইরাসে রীতিমত অচল হয়ে পড়েছে চিনের জনজীবন। উহান শহরে ভাইরাসটির প্রকোপ দেখা দিলেও তা এখন বিশ্ববাসীর কাছে ত্রাসে পরিণত হয়ে দাঁড়িয়েছে। চিনেও ভারতের মত প্রচুর জনসংখ্যা। সেই কারণে রোগটি ছড়িয়েছিল দ্রুত। পরিস্থিতি মোকাবিলায় চিনের একাধিক স্টেডিয়ামকে অস্থায়ী হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছিল। এদেশেও করোনা মোকাবিলায় তেমন পদক্ষেপ নেওয়া উচিত বলে মনে করছেন সেন্টার ফর ডিজিজ ডায়নামিক্স, ইকোনমিক্স অ্যান্ড পলিসির ডিরেক্টর রামানন লক্ষ্মীনারায়ণ। 

আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রে আরও ২ করোনা আক্রান্তের খোঁজ, সাহায্যে চেয়ে নেতানিয়াহুর আবেদন মোদীর কাছে

বর্তমানে এদেশে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৮৩ জন। বিশাল জনসংখ্যার এই দেশে ২-৩দিন অন্তর অন্তর সংখ্যাটা দ্বিগুণ হবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। ইতিমধ্যেই কোভিড-১৯ ভাইরাসে ভারতে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। পরিস্থিতি যা দাঁড়াচ্ছে তাতে আগামী দিনে তা  ভয়াবহ পর্যাতে পৌঁছতে পারে বলে আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। 

১৩০ কোটির দেশে কমিউনিটি ট্রান্সমিশনের সম্ভাবনা রয়েছে প্রবলভাবে। তাই প্রত্যেকের করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা করানো উচিত বলেই মত দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা এদিকে বর্তমানে এদেশে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষাকেন্দ্র রয়েছে ৫২টি। খুব দ্রুত সংখ্যা ৬৫ হবে বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। বর্তমানে করোন পরীক্ষার জন্য ১ লক্ষ কিট রয়েছে। পাশাপাশি আরও ২ লক্ষ কিট তৈরির বরাত দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে দিনে ১০ হাজার করোনার ভাইরাসের পরীক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে এদেশে। 

আরও পড়ুন: চিন নয় মহামারির কেন্দ্রস্থল এখন ইউরোপ, ঘোষণা হু'র, শূণ্যর নিচে আর্থিক বৃদ্ধি নামার আশঙ্কা

বর্তমানে গোটা বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১,৩৫,১১৮। মৃত্যু হয়েছে ৫ হাজারেরও বেশি মানুষের। চিন ছাড়াও ব্যাপক ভাবে করোনা ছড়িয়েছে ইতালি, ইরান ও দক্ষিণ কোরিয়ায়।