শিগগিরই বেসরকারি হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে দুটি রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্ক। 'টাইমস অফ ইন্ডিয়া'র এক প্রতিবেদন অনুযায়ী এই দুটি ব্যাঙ্ক হল সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক। সংবাদ সংস্থা পিটিআই-ও জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় সরকারের থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক, নীতি আয়োগ সম্প্রতি পুনঃবিনিয়োগ সংক্রান্ত সচিবদের কোর গ্রুপ-কে এই বিষয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। সেখানেই চলতি আর্থিক বছরে যে দুটি ব্যাঙ্ককে বেসরকারীকরণ করা হবে, তাদের নাম দেওয়া হয়েছে।

২০২১ সালের কেন্দ্রীয় বাজেট পেশ করার সময়ই অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ ঘোষণা করেছিলেন, ২০২২-২২ সালে দুটি রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্ক অর্থাৎ পিএসবি (PSB) এবং একটি বীমা সংস্থার বেসরকারিকরণ করা হবে। 'আত্মমানির্ভর ভারত' এর জন্য নতুন যে পাবলিক সেক্টর এন্টারপ্রাইজ নীতি তৈরি করা হয়েছে, তা অনুসারে কোনও কোনও পিএসইউ (PSU)গুলিকে একীকরণ করা হবে, কয়েকটির বেসরকারিকরণ করা হবে, বাকিগুলিকে অন্য কোনও বড় পিএসইউ-এর সহায়ক সংস্থা করা হবে। এই পিএসইউগুলির নামের তালিকা তৈরি করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে নীতি আয়োগ-কে। 

নীতি আয়োগ যদি সত্যিই ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া এবং ওভারসিজ ব্যাঙ্ক-কে বেসরকারী হাতে তুলে দেওয়ার প্রস্তাব দিয়ে থাকে, তাহলে এখন প্রথমে বিনিয়োগ ও জনগণের সম্পদ পরিচালনা বিভাগ (DIPAM) এবং আর্থিক পরিষেবা বিভাগ (DFS) সেই প্রস্তাবটি যাচাই করবে এবং ব্যাঙ্কগুলির বেসরকারিকরণের জন্য প্রয়োজনীয় আইনী পরিবর্তনের দিকগুলি নিয়ে আলোচনা করবে। তারপর ক্যাবিনেট সচিবের নেতৃত্বাধীন সচিবদের গোষ্ঠী ব্যাঙ্কগুলিকে বেসরকারিকরণের অনুমোদন দেবে। তবে, এই বিষয়ে চূড়ান্ত অনুমোদন দেবে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন মন্ত্রিসভাই।

তবে রাষ্ট্রায়ত্ব ব্যাঙ্কগুলি বেসরকারি হাতে তুলে দিলেও, ব্যাঙ্ক-কর্মীদের সমস্ত স্বার্থ সুরক্ষিত থাকবে বলে সম্প্রতি আশ্বাস দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। তিনি জানিয়েছেন, কর্মীরা যে তাদের বেতন পেতেন, বেতনের যে স্কেলে ছিলেন এবং অবসরের পর যে পেনশন পাওয়ার কথা, বেসরকারি হাতে যাওয়ার পরও আগের মতো তাঁরা সব সুবিধাই পাবেন। দেশের প্রতিটি ব্যাঙ্ককে ভারতীয় স্টেট ব্যাংক বা এসবিআই (SBI)-এর মতো বড় মাপের ব্যাঙ্কে পরিণত করার লক্ষ্য়েই ব্যাঙ্কগুলিকে বেসরকারিকরণ করা হবে, যাতে তারা দেশের কাঙ্ক্ষিত চাহিদা মেটাতে সক্ষম হতে পারে, এমনটাই জানিয়েছেন সীতারমণ।