সামনেই পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন। আর তার আগেই পশ্চিমবঙ্গকে জন্য নতুন উপহার দিতে চলেছে নরেন্দ্র মোদী সরকার। এক সূত্রের দাবি নির্বাচনের আগেই পাট-এর ন্যূনতম সমর্থন মূল্য বাড়ানোর কথা ভাবছে সরকার। বাংলার কৃষকদের পাশে আছেন মোদী, এই বার্তা আরও জোরালো করতেই এই পদক্ষেপ নিতে পারে সরকার।

জানা গিয়েছে , অর্থনীতি বিষয়ক মন্ত্রিসভা কমিটি পাটের এমএসপি ৬ থেকে ৭ শতাংশ পর্যন্ত বাড়াতে পারে। শেষ পর্যন্ত তা ঘটলে মাত্র দুই বছরের মধ্যে দ্বিতীয়বারের জন্য পাট-এর ন্যূনতম সমর্থন মূল্য বাড়াবে নরেন্দ্র মোদী সরকার। ২০১৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসেই কাঁচা পাটের এমএসপি কুইন্টাল প্রতি ৩,৭০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে কুইন্টাল প্রতি ৩,৯৫০ টাকা করেছিল।

পশ্চিমবঙ্গে বিধানসভা নির্বাচন শুরু হতে আর এক মাসও বাকি নেই। এই সময়ই কেন্দ্রীয় সরকার এমন পদক্ষেপ নিতে চলেছে।, যা একেবারেই ভোটমুখী সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে। সারা দেশে এখন প্রায় ৭০ টি পাটকল রয়েছে। এর মধ্যে প্রায় ৬০টি রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের হুগলি নদীর দুই তীরে। পাট উত্পাদন শিল্পের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের প্রায় দুই লক্ষ মানুষ  জড়িত।

বস্তুত, আসন্ন নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী বাংলার কৃষকদের পাশে আছেন, এমন বার্তাই দিতে চাইছে বিজেপি। বারবারই প্রধানমন্ত্রী কৃষক সম্মান নিধির কথা তুলছে বিজেপি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের বাধায় রাজ্যে কেন্দ্র সরকারি এই প্রকল্প চালু করা যায়নি বলে বাংলার কৃষকরা প্রতি বছরে ৬,০০০ টাকা নগদ পাওয়ার সুবিধা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন, বলে দাবি করছে গেরুয়া শিবির। বিজেপির দাবি অন্তত ৭০ লক্ষ কৃষক তাদের পাওনা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যয়ের জন্য। এছাড়া গ্রামে গ্রামে নয়া তিন কৃষি আইন নিয়েও কৃষকদের অবহিত করা হচ্ছে দলের পক্ষ থেকে।