এবার জলের তলায় দিয়েও ভারতে আক্রমণ শানানোর পরিকল্পনা করছে পাকিস্তানের জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মহম্মদ। তাদের একটি 'আন্ডার ওয়াটার উইং' এর জন্য বেশ কিছু জঙ্গিকে প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। তবে ভারতীয় নৌবাহিনী তাদের সেই আক্রমণ ঠেকাতে একেবারে প্রস্তুত হয়ে রয়েছে। মঙ্গলবার (২৭ অগাস্ট) এমনটাই দাবি করেছেন, ভারতের নৌসেনাবাহিনীর প্রধান অ্যাডমিরাল কর্মবীর সিং।  

তিনি আরও জানান উপকূলে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সব বাহিনীকেই এই বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে। ২৬/১১ মুম্বই হামলার মতো সাগরপথে যাতে কোনো জঙ্গি ভারতে অনুপ্রবেশ না করতে পারে তার জন্য উপকূল ধরে কড়া নজরদারি চালানো হচ্ছে।

আরও পড়ুন - ভারতীয় সেনার তিন বাহিনীর স্যালুটের পদ্ধতি আলাদা, কেন ও কীভাবে করা হয়, জেনে নিন

আরো পড়ুন - পাক জঙ্গিদের হানার আশঙ্কা! সতর্ক নৌসেনার যুদ্ধ জাহাজ

আরো পড়ুন - বালাকোটেই থেমে থাকেনি ভারত, পাকিস্তানকে শিক্ষা দিতে নৌ-সেনা জলে দাপিয়েছে

আরো পড়ুন - বালাকোট এয়ারস্ট্রাইক নিয়ে চাঞ্চল্যকর নতুন তথ্য! এল রাহুল গান্ধীর মামাবাড়ি থেকে

গোয়েন্দা বিভাগের সূত্রেই জলের তলা দিয়ে আক্রমণ চালানোর তথ্য মিলেছে। অ্যাডমিরাল কর্মবীর সিং বলেছএন, তাদের কাছ থেকে খবর পাওযার পরই দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, প্রতিদিনই সন্ত্রাসবাদীরা তাদের আক্রমণের ধারা পাল্টে ফেলছে। কিন্তু তাদের সঙ্গে সঙ্গে নিজেদের বদলে নিচ্ছে নৌসেনা বাহিনীও।

২০০৮ সালে সমুদ্রপথে এসেই মুম্বই শহরে পা রেখেছিল জঙ্গিরা। সেই সময় জলপথেও যে সন্ত্রাসবাদীরা ভারতে অনুপ্রবেশ করতে পারে, সেই কথা কেউ ভাবতেই পারেননি। কিন্তু সেই ঘটনা চোখ খুলে দিয়েছিল। তারপর থেকে নৌসেনা বাহিনী, মেরিটাইম পুলিশ, উপকূলরক্ষী বাহিনী, রাজ্য সরকারগুলি ও অন্যান্য বেশ কয়েকটি বাহিনী নিজেদের মধ্যে সমন্বয় রেখে উপকূলে মজরগদারি রাখে। ফলে সেই ধরণের অনুপ্রবেশের ঘটনা আর ঘটা সন্ভব নয় বলেই দাবি করেছেন নৌসেনা প্রধান।