এর আগে তিন তিনবার আইনি প্যাঁচে ফাঁসি পিছিয়ে দিয়েছে নির্ভয়া কাণ্ডের আসামিরা। এখন আর চারজনের কারোর হাতেই কোনও আইনি প্রতিকার বাকি নেই। এই অবস্থায় নতুন নতুন ফন্দি এঁটে ফাঁসি প্রহসনকে আরও কয়েকটা দিন টেনে নিয়ে যেতে চাইছে চার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। সোমবার অন্যতম আসামি বিনয় শর্মা তার আইনজীবী এপি সিং-এর মাধ্যমে মৃত্যুদণ্ডকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে পরিণত করার জন্য দিল্লির লেফট্যানেন্ট গভর্নরের কাছে আবেদন করল।

আগামি ২০ মার্চ ভোর সাড়ে চারটেয় ফাঁসি হওয়ার কথা চার আসামির। এদিন ভারতীয় দণ্ডবিধির দুটি ধারায় আইনজীবী এপি সিং একটি পিটিশন দায়ের করে বিনয় শর্মার মৃত্যুদণ্ড স্থগিত করার আবেদন জানিয়েছেন। গত শুক্রবারই এই মামলার আরেক মৃ্ত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি মুকেশ সিং সুপ্রিম কোর্টে নতুন করে কিউরেটিভ পিটিশন ও রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করার আইনি প্রতিকার ফিরিয়ে দেওয়ার আবেদন করে। তার অভিযোগ আইনজীবীরা তাকে বিভ্রান্ত করেছেন।

ঠিক তার আগের দিন গত বৃহস্পতিবার, দিল্লির পাতিয়ালা হাউস আদালত নির্ভয়াকাণ্ডের চার আসামির বিরুদ্ধে নতুন করে মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছিল। তার আগে তিন তিন বার মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেও পরে সেগুলিতে স্থগিতাদেশ জারি করতে হয়েছে।

প্রথমবার ঠিক হয়েছিল ২২ জানুয়ারি ফাঁসি হবে। তারপর ঠিক হয় ১ ফেব্রুয়ারি। তৃতীরবার ৩ মার্চ ভোর ৬টায় ২০১২ সালের এইগণধর্ষণ হত্যা মামলার পরিসমাপ্তি ঘটানো হবে বলে ঠিক হয়েছিল। কিন্তু প্রতিবারই একজন একজন করে আসামি প্রাণভিক্ষার আবেদন জানিয়েছে। চারজনকে আলাদাভাবে ফাঁসি দেওয়া যাবে না বলে এতদিন ধরে সেই ফাঁসি কার্যকর করার প্রক্রিয়া চলছেই।