প্রবাসী শ্রমিকদের থেকে ভাড়া হিসেবে কোনও টাকা নেওয়া যাবে না।  কঠোর নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের। ট্রেন অথবা বাস কোনও ভাড়াই দেবে না প্রবাসী শ্রমিকরা। কিন্তু গ্রামে ফিরতে চাওয়া প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য সবরকম ব্যবস্থা করতে হবে বলেই নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট।  করোনাভাইরাস লকডাউনের কারণে প্রবাসী শ্রমিকদের সংকট  নিয়ে একটি মামলা গ্রহণ করেছে সুপ্রিম কোর্ট । বৃহস্পতিবার সেই মামলার শুনানি হয় বিচারপতি অশোক ভূষণ, এসকে কল ও এমআর শাহর বেঞ্চে। 

এদিন সুপ্রিম কোর্ট  নির্দেশ দিয়েছে প্রাপক ও গ্রাহক দুই রাজ্যকেই প্রবাসী শ্রমিকদের সফরের ব্যয়ভার বহন করতে হবে। পাশাপাশি সমস্ত ব্যবস্থাও সংশ্লিষ্ট রাজ্যগুলিকে করতে হবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে। 

প্রবাসী শ্রমিকদের ট্রেনে করে তাঁদের গন্তব্যে পৌঁছানোর সময় খাবার ও জলও  সরবরাহ করতে হবে। যে রাজ্য থেকে ট্রেন ছাড়বে সেই রাজ্যটি প্রথম খাবার সরবরাহ করবে। সফরকালীন সমস্ত খাবার বিতরণ করবে রেলমন্ত্রক,  নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। একই পদ্ধতি কার্যকর হবে বাস বা অন্য যানের ক্ষেত্রেও। 

এদিন সুপ্রিম কোর্ট আরও জানতে চেয়েছে প্রবাসী শ্রমিকদের ফেরত পাঠাতে আরও কতটা সময় লাগবে। আর সেই অন্তবর্তীকালীন সময় তাঁদের খাবার ও জলের কী ব্যবস্থা করা হচ্ছে। কারণ এদিনই সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে অন্তবর্তীকালীন সময় প্রবাসী শ্রমিকদের খাবার ও জলের ব্যবস্থা করতে হবে  সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকার অথবা কেন্দ্র শাসিত অঞ্চলগুলিকে। প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য খাবার বিরতণের যে ব্যবস্থা করা হয়েছে তাও বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানাতে হবে। কোন কোন এলাকা থেকে খাবার সরবরাহ করা হবে তাও উল্লেখ রাখতে হবে বিজ্ঞপ্তিতে। 

গতকালই সুপ্রিক কোর্ট প্রবাসী শ্রমিকদের দুর্দশার প্রসঙ্গ উত্থাপন করে বলেছিল  কেন্দ্র ও রাজ্যের অপ্রত্যাশিত ও কিছু ভুল হয়েছে। পাশাপাশি অবিলম্ব প্রবাসী শ্রমিকদের খাবার জল ও আশ্রয় সরবরাহ করার কথাও বলা হয়েছিল। কারণ লকডাউনের কারণে বহু প্রবাসী শ্রমিকই কাজ ও আশ্রয় হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে এসে দাঁড়িয়েছে। এই অবস্থায় দাঁড়িয়ে বাড়ি ফিরতে মরিয়া তাঁরা। প্রবাসী শ্রমিকদের এই সংকট নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগও প্রকাশ করেছিল শীর্ষ আদালত।