দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডের পর হায়দরাবাদের তরুণী পশু চিকিৎসকের নারকীয় নির্যাতনের ঘটনায় ফের একবার স্তম্ভিত গোটা দেশ। ক্ষোভে, লজ্জায়, বেদনায় ফুসছে সকলে। রাগে-ঘৃণায় অনেকেই চাইছেন, অভিযুক্তদের জনসমক্ষে ফাঁসি দেওয়া হোক। দরকার নেই কোনও বিচারের। আইন ব্যবস্থা অবশ্য বলে দোষী হলেও তাদেরও আইনি সহায়তা প্রাপ্য। কিন্তু তেলেঙ্গানার ডিসট্রিক্ট বার অ্যাসোসিয়েশন রবিবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, একজনও আইনজীবী অভিযুক্ত চারজনের হয়ে আইনি লড়াই লড়বে না।

আরও পড়ুন - সমবেদনা চাই না, কেন চুপ মোদী-কেসিআর, ক্ষোভে ফুসছে প্রিয়ঙ্কার পাড়া

রঙ্গা রেড্ডি, যে জেলায় নির্যাতিতার বাড়ি এবং এই জঘন্য ঘটনা ঘটেছে, সেই জেলার বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মাত্তাপাল্লি শ্রীনিবাস জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা জঘন্য অপরাধ ঘটিয়েছে। নৈতিক ও সামাজিক দায়িত্ববোধের জায়গা থেকেই বার অ্যাসোসিয়েশনের একজনও ওই চারজনের হয়ে আইনি লড়াই লড়তে রাজি নন।

আরও পড়ুন - নির্যাতিতার স্কুটারেই ফের ঘটনাস্থলে ফিরেছিল দুই ধর্ষক, প্রকাশিত আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য

তাহলে কি অভিযুক্তরা কোনও আইনি সহায়তাই পাবেন না? মাত্তাপাল্লি শ্রীনিবাস জানিয়েছেন, আইনজীবীরা কেউ নিজে থেকে আইনি সহায়তা দেবেন না। এই সব ক্ষেত্রে আদালত থেকে জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষকে অভিযুক্তদের পক্ষে একজন আইনজীবী নিয়োগের নির্দেশ দিয়ে থাকে। হায়দরাবাদের ঘটনার ক্ষেত্রেও সেইরকম নির্দেশ থাকলে তা অমান্য করা যাবে না। সেই ক্ষেত্রে একজন আইনজীবীকে অভিযুক্তদের পক্ষে দাঁড়াতেই হবে।

আরও পড়ুন -হায়দরাবাদ গণধর্ষণ কাণ্ডে ক্ষুব্ধ বিরাট, সোশ্যাল মিডিয়ায় দিলেন কড়া বার্তা