আজকের দিনেও অকালে স্বামী হারিয়ে বহু মহিলাই সমাজের তীর্যক মন্তব্যের শিকার হতে হয়। শুধু তাই নয় আজকের সমাজেও এখনও স্বামী হারা বিধবাদের এখনও পারিপার্শিক সমাজ থেকে তো বটেই নিজের পরিবারের কাছেও অনেক নেতিবাচক মন্তব্য শুনতে হয়। কিন্তু এই মহিলা তাঁর বিধবা বৌমার জন্য, যা করলেন তা জানলে সত্যি অবাক হতে হয়।

মাত্র ২০ বছর বয়সেই স্বামী হারিয়ে বৈধব্য জীবন কাটাচ্ছে মেয়েটি। তাঁর জীবনকে ফের আনন্দে ভরিয়ে দিল তার শাশুড়ি। বিধবা পুত্রবধুর আবার বিয়ে দিলেন তিনি। ঘটনাটি ঘটেছে ওড়িশার আঙ্গুল জেলায়। আঙ্গুল জেলার গোবরা গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রাক্তন সরপঞ্চ প্রতিমা বেহরা নামে ওই মহিলা নিজের বিধবা পুত্রবধু লিলি বেহরার পুনরায় বিয়ের আয়োজন করেছেন। 

চলতি বছর ফেব্রুয়ারি মাসেই তাঁর ছোট ছেসে রশ্মিরঞ্জনের সঙ্গে লিলির বিয়ে দেন প্রতিমা দেবী। কিন্তু অদৃষ্টের নিষ্ঠুর পরিহাসে অকালেই প্রাণ হারায় তাঁর সন্তান। জুলাই মাসে ভরতপুরের একটি কয়লাখনিতে দুর্ঘটনার ফলে মৃত্যু হয় তার। স্বামীর অকাল মৃত্যুতে অসম্ভব ধাক্কা পেয়েছিলেন লিলি। চরম আঘাতে একপ্রকার নিশ্চুপই হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। তাঁর অবস্থা চোখে না দেখতে পেরে প্রতিমা দেবী তাঁকে পুনর্বিবাহের জন্য রাজি করান এবং তার জন্য পাত্র দেখা শুরু করেন। 

দিনভর উত্তপ্ত রইল উপত্যকা, পুঞ্চের তিন সেক্টরে ভারী গোলা বর্ষণ পাক সেনার

যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘনের জের, সাদা পতাকা দেখিয়ে উদ্ধার করা হল নিহত দুই পাকিস্তানি সেনাকে

অবশেষে তিনি যান নিজের ভাইয়ের কাছে ভাইয়ের থেলের জন্য বিয়ের প্রস্তাব নিয়ে। প্রতিমা দেবীর কথায়, 'আমি জানি আমার থেলে আর কোনওদিনও ফিরবে না, তার অভাব অপূরণীয়। কিন্তু মাত্র কুড়ি বছর বয়সে আমার পুত্রবধু যে পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে তা চোখে দেখা যায় না।তাঁর ভাল থাকার সমস্ত অধিকার রয়েছে। আর সেই কারণেই আমি তার আবার বিয়ে দেওয়ার কথা ভাবি। '