পশ্চিমবঙ্গে ইতিমধ্যেই একশো টাকা ছুঁয়েছে পেঁয়াজের কেজি। গোটা দেশেই অবস্থাটা একই রকম। পেঁয়াজ কাটার আগে কিনতে গিয়েই চোখে জল আসছে আম জনতার। এই অবস্থায় অভিনব কায়দায় পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানালো সমাজবাদী পার্টি। আধার কার্ড বন্ধক রেখে ধারে পেঁয়াজ দেওয়ার ব্যবস্থা করলেন দলের কর্মী, সমর্থকরা। 

সংবাদসংস্থার খবর অনুযায়ী, বারাণসীতে এমন প্রতিবাদ কর্মসূচির বন্দোবস্ত করেছে সমাজবাদী পার্টির যুব সংগঠন। সংগঠনের সদস্যরা জানিয়েছেন, আধার কার্ড বা রুপোর গয়না বন্ধক রেখে সাধারণ মানুষকে পেঁয়াজ দেওয়া হচ্ছে। কোনও কোনও দোকানে পেঁয়াজ লকারেও রাখা হচ্ছে সোনার মতো। এভাবেই পেঁয়াজের অগ্নিমূল্যের প্রতিবাদ করছেন তাঁরা। 

সমাজবাদী পার্টির মতো কংগ্রেসও শনিবার লখনউতে রাজ্য বিধানসভার বাইরে পেঁয়াজ বিক্রির বন্দোবস্ত করে। খোলা বাজারে যেখানে একশো টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে, সেখানে মাত্র চল্লিশ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়। কংগ্রেস  নেতা শৈলেন্দ্র তিওয়ারি অভিযোগ করেন, 'সবজির মূল্যবৃদ্ধির জেরে সাধারণ মানুষ চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছেন। কিন্তু সাধারণ মানুষের সমস্যার কথা কানে শুনতেই নারাজ সরকার। তাই সাধারণ মানুষের সাধ্যের মধ্যে থাকা দামে আমরা পেঁয়াজ বিক্রির ব্যবস্থা করেছি।' তাঁরও দাবি, পেঁয়াজের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদেই তাঁরা এই পথে হেঁটেছেন। 

আরও পড়ুন- এখনই দাম কমার সম্ভাবনা নেই, পেঁয়াজ সংকট কাটাতে ভরসা এখন রাজস্থান

আরও পড়ুন- আগেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে দাম, এবার চুরি গেল মূল্যবান পেঁয়াজ

পশ্চিমবঙ্গের মতো উত্তরপ্রদেশের প্রয়াগরাজ, প্রতাপগড়, ভদোহি, গোন্ডার মতো বিভিন্ন জেলায় পেঁয়াজের দর কেজি প্রতি একশো টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে। এই ইস্যুকে হাতিয়ার করেই সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে নেমেছে সমাজবাদী পার্টি, কংগ্রেসের মতো রাজনৈতিক দলগুলি। 

গত ২০ নভেম্বর এক লক্ষ কুড়ি হাজার মেট্রিক টন পেঁয়াজ আমদানিতে অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। বিদেশ থেকে পেঁয়াজ এলে দাম সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে আসে কি না, সেটাই এখন দেখার।