করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ প্রায় ৫ লক্ষ কিট কিনেছিল চিন থেকে। অ্যান্টবডি পরীক্ষার ওই কিটগুলি মূলত আমদানি করা হয়েছিল চিনের দুটি সংস্থা গুয়াংজু ওয়ান্ডফো বায়োটেক ও ঝুহাই লিভজন ডায়াগনাস্টিক থেকে। কিন্তু সেই কিটে পরীক্ষার ফলাফল নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে রাজস্থান. পঞ্জাবসহ একাধিক রাজ্য। তারপর কিছুটা বাধ্য হয়েই চিনের ওই দুটি সংস্থা থেকে আমদানি করা কিট বাতিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিএমআর। সোমবারই আইসিএমআর রাজ্যগুলির আপাতত দ্রুত পরীক্ষা নেওয়া বন্ধ রাখতে বলেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রক ওই কিটগুলি বাতিল করা হবে বলে ঘোষণা করেছে। পাশাপাশি জানিয়েছে চিন থেকে আমদানি করা কিট বাতিল করায় ভারতের কোনও আর্থিক ক্ষতি হবে না। 

সোমবারের কেন্দ্রীয় সরকার এই সিদ্ধান্ত ঘোষণার পরই মঙ্গলবার আসরে নেমেছে চিন। চিন দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানান হয়েছে চিনের সংস্থার তৈরি কিটে করোনা মোকাবিলায় দ্রুত অ্যান্টবডি পরীক্ষা বন্ধ রাখার ভারতের সিদ্ধান্ত খুবই উদ্বেগজনক। আগামী দিনে ভারত যুক্তসঙ্গতভাবেই বিষয়টির সমাধান করবে বলেও জানান হয়েছে। চিনের দূতাবাসের মুখপাত্র জানিয়েছেন, চিকিৎসার মূল্যায়ন ফলাফল ও আইসিএমআর-এর সিদ্ধান্ত নিয়ে গভীরভাবে উদ্বেগ প্রকাশ করছে চিন।

ওই বিবৃতিতে চিনের তরফে জানান হয়েছে , কয়েকজন নির্দিষ্ট ব্যক্তি চিনের তৈরি পণ্যকে ত্রুটিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত করেছেন। যা খুবই দায়িত্বজ্ঞানহীন বলেও মন্তব্য করা হয়েছে। পুরনো ধ্যানধারনা বাইরে রেখে পুরো বিষয়টি যুক্তিসঙ্গতভাবে পর্যবেক্ষণ করে দেখাও জরুরী বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে চিনের দূতাবাস স্পষ্ট করেনি কোন কোন ব্যক্তিদের দিকে তারা আঙুল তুলেছে। 

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে গত মাসেই প্রচুর আর এলেমোলে নমুনা পরীক্ষার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ইন্ডিয়ার কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ। মূলত হটস্পট আর জরুরী পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদেরও পরীক্ষা করতে চেয়েছিল সংস্থাটি। আর সেই জন্যই চিনের দুটি সংস্থা থেকে প্রায় ৫ লক্ষ কিট আমদানি করা হয়। কিন্তু সেই কিটগুলি থেকে মাত্র ৫ শতাংশের কিছু বেশি সঠিক ফল পাওয়া যাচ্ছে। কিট ত্রুটিপূর্ণ বলে অভিযোগ করেছে রাজস্থান, পঞ্জাব, পশ্চিমবঙ্গসহ বেশ কয়েকটি রাজ্য। 

আরও পড়ুনঃ রেশন নিয়ে ক্রমশই রাজনৈতিক সুর চড়ছে রাজ্যে, বিজেপির লকেটকে নিশানা তৃণমূলের ...

আরও পড়ুনঃ অবশেষে চিনের কিট দিয়ে করোনা পরীক্ষায় ইতি টানল আইসিএমআর, সরকারি টাকা জলে গেল না তো ...

আরও পড়ুনঃ চিনা কিট নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ কংগ্রেসের, এবার আর বিরোধিতা নয় মোদীর কাছে আর্জি রাহুলের ...

অন্যদিকে চিন থেকে আমদানি করা কিট নিয়ে আর্থিক দুর্ণীতিরও অভিযোগ উঠেছে।  আমদানী কারক সংস্থা ম্যাট্রিক্স ২৪৫ টাকার বিনিয়ম কিনেছিল। দেশীয় দুটি বিরতণকারী সংস্থা রিয়েল মেটাবলিক্স  ও আরক ফার্মাসিউটিক্যালক সেই কিটগুলি ভারত সরকারকে ৬০০ টাকায় বিক্রি করে। কিট প্রতি প্রায় ৪০০ টাকা দাম বাড়ান হয়েছিল বলে অভিযোগ। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই হাইকোর্টে মামলাও দায়ের করা হয়েছে।